• শনিবার   ১৯ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৬ ১৪২৮

  • || ০৯ জ্বিলকদ ১৪৪২

ইউএনও জেসমিন সুলতানা বললেন, নারী হিসেবে চ্যালেঞ্জ দেখি না

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১০ জুন ২০২১  

মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার ইতিহাসে প্রথম বারের মতো নারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসাবে যোগদান করেছেন জেসমিন সুলতানা। যোগদানের পর থেকে উপজেলার সকল রাজনীতিবিদ, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক সমাজ, সাংবাদিকসহ সকল শ্রেণি-পেশার লোকজনদের মাঝে বেশ আগ্রহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। প্রতিদিনই বিভিন্ন সংগঠন, সরকারদলীয় নেতা-কর্মীসহ বিভিন্ন স্তরের লোকজন ফুল দিয়ে তাকে শুভেচ্ছা ও অভিবাদন জানাচ্ছেন।

উপজেলায় পাটুরিয়া ও আরিচা দুটি গুরত্বপূর্ণ ফেরিঘাটসহ মহাসড়ক থাকায় অনেকের মতে নারী ইউএনও হিসাবে এখানে দায়িত্ব পালন করাটা অনেকটাই চ্যালেঞ্চ মনে করা হয়। ইতিপূর্বে তিনি ফরিদপুরের চরভাদ্রাসন উপজেলা নির্বাহী অফিসার হিসেবে  দায়িত্ব পালন করেছেন। 

শিবালয় উপজেলায় সদ্য যোগদানকারী ইউএনও জেসমিন সুলতানা  বলেন, এই উপজেলার ইতিহাসে আমিই প্রথম নারী ইউএনও। বিষয়টি আমি নারী হিসাবে চালেঞ্জ দেখছি না। সরকারের অর্পিত দায়িত্বটাকে সততার সাথে সবাইকে সাথে নিয়ে কাজ করে যেতে চাই। আমি এর আগে একটা উপজেলায় ইউএনও হিসাবে দীর্ঘ দিন দায়িত্ব পালন করেছি।

তিনি বলেন, অতীত অভিজ্ঞতার সমন্বয়ে এই উপজেলায় শুরুতেই বেশ কিছু পরিকল্পনা নিয়ে কাজ শুরু করতে চাই। এর মধ্যে বাল্যবিবাহ, মাদক, নারী নির্যাতন ও যৌতুকের বিরুদ্ধে কাজ করব। সাথে অসহায় গরিব, দুস্থ মানুষদের প্রাপ্ত নাগরিক অধিকার নিশ্চিতের লক্ষে বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে। পাশাপাশি সরকারের উন্নয়নমূলক কাজকে আরো গতিশীল করতে রাত-দিন কাজ করে যেতে চাই।

স্থানীয় সচেতন মহলের কয়েকজন জানান, চলতি মাসের ৬ জুন তার যোগদানের পর সবার মাঝে আগ্রহ-উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে নারী হিসাবে কেমন দায়িত্ব পালন করবে এমনটাই আলোচনা সর্বত্র চলছে। কারণ দুটি গুরত্বপূর্ণ ফেরিঘাট থাকায় ইতিপূর্বে ঊর্ধ্বতনরা এখানে কোনো নারী ইউএনওকে পদায়ন করেননি বলে তাদের ধারনা।