• শনিবার   ১৯ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৬ ১৪২৮

  • || ০৯ জ্বিলকদ ১৪৪২

করোনাকালেও রেমিট্যান্সে বাংলাদেশের উন্নতি

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০২১  

করোনা মহামারি শুরুর পর থেকেই শঙ্কা ছিল ধস নামতে পারে দেশের রেমিট্যান্স বা প্রবাসী আয়ে। কিন্তু তেমনটা ঘটেনি। করোনার মধ্যেই ২০২০ সালে বাংলাদেশ পেয়েছে ২২ বিলিয়ন ডলার বা ১ লাখ ৮৪ হাজার ৮০০ কোটি ডলার রেমিট্যান্স। ফলে প্রবাসী আয় প্রাপ্তির দিক থেকে এ বছর এক ধাপ এগিয়ে সপ্তম স্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ।
 

এমন তথ্যই প্রকাশ করেছে গ্লোবাল নলেজ পার্টনারশিপ অন মাইগ্রেশন অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (নোমাড)।

সংস্থাটি এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মহামারির কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রবাসী আয় কিছুটা কমলেও বেড়েছে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশে।

জানা গেছে, ২০২০ সালে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোর মধ্যে প্রবাসী আয় প্রাপ্তিতে শীর্ষস্থানে ছিল ভারত। দেশটিতে গত বছর প্রবাসী আয় এসেছে ৮৩ বিলিয়ন ডলারের বেশি। এরপরের অবস্থানে আছে চীন। তাদের আয় প্রায় ৬০ বিলিয়ন ডলার। তালিকায় তৃতীয়, চতুর্থ, পঞ্চম ও ষষ্ঠ স্থানে আছে মেক্সিকো, ফিলিপাইন, মিসর ও পাকিস্তান। দেশগুলো গত বছর যথাক্রমে ৪৩, ৩৫, ৩০ ও ২৬ বিলিয়ন ডলার প্রবাসী আয় অর্জন করেছে।

সপ্তম স্থানে আছে বাংলাদেশ। ২০২০ সালে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স এসেছে ২২ বিলিয়ন ডলার। ২০১৯ সালে বাংলাদেশে প্রবাসী আয় এসেছিল ১৮ দশমিক ৩৬ বিলিয়ন ডলার।

দ্য গ্লোবাল নলেজ পার্টনারশিপ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মহামারি করোনার কারণে সারাবিশ্বে প্রবাসী আয় কমেছে দেড় শতাংশের মতো। তবে আয় বেড়েছে বাংলাদেশসহ দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের বেশ কয়েকটি দেশের। ২০২০ সালে দক্ষিণ এশিয়ায় প্রবাসী আয়ের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৫ দশমিক ২ শতাংশ যা পরিমাণগত দিক থেকে যা ১৪৭ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশে ২০১৯ সালের তুলনায় প্রবাসী আয়ের প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৮ দশমিক ৪ শতাংশ।