• বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪২৭

  • || ২১ রজব ১৪৪২

কলকাতায় বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণ স্মরণে বিশেষ আয়োজন

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১৮ জানুয়ারি ২০২১  

কলকাতার ব্রিগেড ময়দানের ঐতিহাসিক ভাষণকে স্মরণ করতে বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয় ব্যতিক্রম এক আয়োজন করেছে। মুক্তিযোদ্ধা সম্মাননাপ্রাপ্ত ভারতীয়দের ওই মাঠে সংবর্ধনা জানানো হবে। আমন্ত্রণ জানানো হবে, মৈত্রী সম্মাননা প্রাপ্তদেরও। এরই মধ্যে সব প্রস্তুতি চূড়ান্ত।

১৯৭২ সালে ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের সময় কলকাতার মানুষ অধির আগ্রহে প্রতিক্ষা করেছিলেন, যে বাংলাদেশের স্বাধীতার স্থপতি লন্ডন দিল্লি হয়ে যাতে কলকাতার মাটি ছুঁয়ে বাংলাদেশে ফেরেন। কিন্তু জাতির জনক নিজের দেশের মাটিতে আগে ফিরবেন বলে দৃঢ় সংকল্প নিয়েছিলেন। তবে যে শহরের মানুষ তার দেশের স্বাধীন হওয়ার পেছনে বড় অবদান রেখেছেন; সেই শহরের মানুষকেও তিনি বঞ্চিত করেননি।

কলকাতা হয়ে ঢাকা ফেরার পথে ককপিটে পাইলটের ফোন থেকে কলকাতা বিমানবন্দরে বার্তা দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু; বলেছিলেন খুব শিগগিরই তিনি আসছেন কলকাতায়। যেমন কথা তেমন কাজ বাংলাদেশে ফেরার এক মাসের মধ্যেই ৬ ফেব্রুয়ারি কলকাতায় পা রাখেন বঙ্গবন্ধু।

বাংলাদেশের তথ্য মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ঐতিহাসিক ৬ ফেব্রুয়ারি দিনকে আরও স্মরণীয় করতে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে মৈত্রী সম্মাননা প্রাপ্ত ভারতীদের সংবর্ধনা জানানো হবে ঐতিহাসিক বিগ্রেড ময়দানে।

কলকাতাস্থ বাংলাদেশ উপহাইকমিশনের প্রথম সচিব মোফাকখারুল ইকবাল বলেন, ‘১৯৭২ সালের ব্রিগেড ময়দানে বঙ্গবন্ধুর জনসভাকে ভারতের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় জনসভা বলে ধরা হয়। সম্মান জনসভাকে সম্মান জানিয়ে বাংলাদেশের তথ্যমন্ত্রী সেই ব্রিগেড ময়দানে একটা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর উপলক্ষে বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশন ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ আয়োজনে কলকাতায় নানা কর্মসূচিও রয়েছে ৬ ফেব্রুয়ারি।