• শুক্রবার   ০৭ মে ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২৪ ১৪২৮

  • || ২৬ রমজান ১৪৪২

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলায় করোনায় আক্রান্তের হার বেশি

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২ মে ২০২১  

মানিকগঞ্জে গত জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে করোনায় আক্রান্তের হার কমে আসে। তবে মার্চ মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে তা আবার বাড়তে শুরু করে। মার্চ মাস থেকে শুরু হয়ে বিগত দুই মাসে জেলার সাতটি উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি।

রোববার সকালে বিষয়টি জানিয়েছেন জেলা হাসপাতালের সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল আমিন আখন্দ।

সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে জানা যায়,  মার্চ মাসে জেলার সাত উপজেলা থেকে ১ হাজার ৯৫ জনের নমুনা সংগ্রহ করে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করা হয়। এসকল নমুনার প্রাপ্ত ফলাফলে ৯৫ জন করোনায় আক্রান্ত হন। যাদের মধ্যে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার রোগী ছিলো ৫৫ জন। এছাড়া, এপ্রিল মাসে জেলার সাতটি উপজেলা থেকে ১ হাজার নয়শো ৮৮ জনের নমুনা সংগ্রহ করে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করা হয়। এসকল নমুনার প্রাপ্ত ফলাফলে তিনশো দুই জন করোনায় আক্রান্ত হন যাদের একশো ৪৯ জনই সদর উপজেলার। গত দুই মাসে শনাক্ত মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর প্রায় ৫২ শতাংশই সদর উপজেলার।

জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আরশ্বাদ উল্লাহ জানান, ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য একশো বেডের করোনা ইউনিট চালু রয়েছে। এছাড়া সম্প্রতি এ ইউনিটে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহ চালু করা হয়েছে। করোনা ইউনিটে ১২টি হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানেলা , ১৩ টি অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর  ও ২৯ টি অক্সিজেন ফ্লো মিটার রয়েছে।  চিকিৎসক ও নার্সদের সমন্বয়ে করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবা দিতে তিনটি শিফট চালু হয়েছে। প্রতি শিফটে দুইজন করে চিকিৎসক ও চারজন করে নার্স দ্বায়িত্ব পালন করছেন। জেলার এ হাসপাতালে সদর উপজেলা ছাড়াও অন্যান্য উপজেলার করোনা আক্রান্ত রোগীরা চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল আমিন আখন্দ জানান, সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্য বিধি না মানার কারণে করোনা রোগী বেড়েছে। বেশিরভাগ জনসমাগমপূর্ণ এলাকা সদর উপজেলায় হওয়াতে ও স্বাস্থ‌্যবিধি না মানার কারণে উপজেলায় আক্রান্তের হার বেশি। মাস্ক পড়ার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানান তিনি।