• বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪২৭

  • || ২১ রজব ১৪৪২

মুজিববর্ষের উপহার: ঘর পাবে ৬৬ হাজার পরিবার

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২০ জানুয়ারি ২০২১  

স্থায়ী ঠিকানা পাচ্ছেন গৃহহীনরা। মুজিববর্ষ উপলক্ষে শনিবার ৬৬ হাজার গৃহহীন পরিবারকে জমিসহ ঘর হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গৃহহীনদের ঘর দেয়ার বঙ্গবন্ধুর ইচ্ছা পূরণ করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ সরকার। জন্মশতবার্ষিকীতে ৬৬ হাজার পরিবারকে ৭০০ বর্গফুটের বাড়ি দেয়া হচ্ছে। মুজিববর্ষের আয়োজন স্বার্থক করতে নেয়া হয়েছে এ উদ্যোগ। সরকারের এই উদ্যোগে শামিল হয়েছেন জনপ্রতিনিধি, প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী ও বিত্তবানরা। প্রায় ৬ হাজার ঘর নির্মাণ করে দিচ্ছেন তারা। পানি সম্পদ উপমন্ত্রী নিজের টাকায় শরিয়তপুরে গড়ে দিয়েছেন ১৫টি বাড়ি। সচিবরাও সারাদেশে ১৬০টি বাড়ি নির্মাণ করে তা হস্তান্তর করেছেন।


প্রকৃত গৃহহীনরাই যাতে এই ঠাঁই পান সেজন্য যাচাই-বাছাই করা হয়েছে কয়েক ধাপে। প্রকল্পটি সরাসরি তদারক ও বাস্তবায়ন করছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

সূত্র জানায়, ২০২০ সালের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা করেছিলেন, মুজিববর্ষে দেশে কোনও মানুষ গৃহহীন থাকবে না। সরকার সব ভূমিহীন, গৃহহীন মানুষকে ঘর তৈরি করে দেবে।

জানা গেছে, সরকারের তিনটি কর্মসূচির আওতায় দেশের ভূমিহীন ঠিকানাহীন মানুষদের ঘর তৈরি করে দেয়ার কাজ করছে। এসব কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের আওতায় দুর্যোগ সহনীয় বাড়ি প্রকল্প। ভূমি মন্ত্রণালয়ের আওতায় গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আশ্রয়ণ প্রকল্প-২। এর বাইরে আমার বাড়ি, আমার খামার প্রকল্পও রয়েছে। তবে সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও সংস্থা যৌথভাবে গৃহহীনদের জন্য নেওয়া এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে। প্রতিটি জেলার জেলা প্রশাসকরা মাঠ পর্যায়ে প্রকল্পের অগ্রগতি তদারকি করবেন। অনেক আগে থেকেই এই তিনটি প্রকল্পের মাধ্যমে নদীভাঙন পরিবার, বেদে পরিবার ও হিজড়াসহ বিভিন্ন কারণে যারা ভূমিহীন ও গৃহহীন হয়েছেন তাদের ঘর নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যেই এসব প্রকল্পের অনেক বাড়িঘর সংশ্লিষ্টদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আবার অনেক বাড়ি হস্তান্তরের প্রক্রিয়ায় রয়েছে।

উল্লেখ্য, সরকার ২০১৬ সালে জেলা প্রশাসকদের মাধ্যমে কোন জেলায় কতজন ভূমিহীন, গৃহহীন ও জমি আছে ঘর নেই এমন মানুষের তালিকা তৈরি করে। ৬৪ জেলার জেলা প্রশাসকদের পাঠানো তথ্য মতে ওই সময় পর্যন্ত দেশে ১৬ লাখ ৬৩ হাজার মানুষ ছিলেন যারা ভূমিহীন, গৃহহীন এবং জমি আছে কিন্তু ঘর নেই। ওই তালিকা থেকেই এখন সুবিধাভোগী চিহ্নিত করা হয়েছে।

এদিকে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো সর্বশেষ যে কৃষিশুমারি করেছে সেখানে বলা হয়েছে, দেশে খানার সংখ্যা ৩ কোটি ৫৫ লাখ। এদের মধ্যে কোনও ধরনের জমি নেই বা ভূমিহীন খানার সংখ্যা ৪০ লাখ ৩০ হাজার। ২০১৯ সালের ৯ জুন থেকে ২০ জুন পর্যন্ত সারাদেশে এই জরিপ পরিচালনা করে বিবিএস।