• শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৭

  • || ২০ রবিউস সানি ১৪৪২

৮০

যেভাবে ক্যান্সার প্রতিরোধ করবে কারিপাতা

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২০ অক্টোবর ২০২০  

দিন দিন ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার দেখা দিচ্ছে অহরহ। মরণব্যাধি এই রোগের হাত থেকে নিস্তারও মেলে না সহজে। শেষ পরিণতি মৃত্যু। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়মিত নানাভাবে যদি কারি পাতা খেলে ক্যান্সারের হাত থেকে দূরে থাকা যায়। এছাড়াও আরও একাধিক শারীরিক উপকারও পাওয়া যায়।  

সম্প্রতি জাপানী বিজ্ঞানিদের একটি দল এক পরীক্ষা চালিয়েছিলেন। তাতে দেখা গেছে কারি পাতায় উপস্থিত "কার্বাজল অ্যাসকালোয়েড" নামক একটি উপাদান। যা শরীরে প্রবেশ করার পর একের পর এক ক্যান্সার সেল মারতে শুরু করে। ফলে এই মারণ রোগ ধারে কাছেও ঘেঁষতে পারে না।  

বিশেষ করে কলোরেকটাল, লিউকেমিয়া এবং প্রস্টেট ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা একেবারে থাকে না বললেই চলে। তবে এমন উপকার পেতে ৩০-৪০ টা কারি পাতা পরিমাণ মতো পানিতে ফুটিয়ে নিতে হবে। তারপর পাতাগুলো ছেঁকেওনিন। এবার সেই পানিতে এক চামচ মধু এবং অল্প লেবুর রস মিশিয়ে পান করতে হবে। প্রতিদিন যদি এমনটা করতে পারেন, তাহলে দেখবেন উপকার মিলতে সময় লাগবে না।

এছাড়াও কারি পাতার রয়েছে নানান স্বাস্থ্য উপকারিতা। জেনে রাখুন সেগুলো-

চোখের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায়। সেই সঙ্গে ড্রাই আই এবং দৃষ্টি শক্তি কমে যাওয়ার মতো সমস্যাও দূর করে। সেক্ষেত্রে পরিমাণ মতো কারি পাতা নিয়ে চোখের উপর রাখতে হবে। তবে এই সময় চোখটা যেন বন্ধ থাকে। এইভাবে দশ মিনিট থাকার পর পাতাগুলি সরিয়ে ফেলতে হবে। এইভাবে প্রতিদিন চোখের পরিচর্যা করুন।

কারি পাতায় উপস্থিত ল্যাক্সেটিভ প্রপাটিজ শুধু যে হজম ক্ষমতার উন্নতি ঘটায়। যারা মাঝে মধ্যেই বদ-হজমের সমস্যায় ভুগে থাকেন, তাদের কারি পাতাকে সঙ্গী করে নিন। 

এই প্রকৃতিক উপাদানটি অক্সিডেটিভ স্ট্রেস এবং ক্ষতিকর টক্সিনের হাত থেকে লিভারকে রক্ষা করে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই শরীরের এই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গটির কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

কারি পাতায় উপস্থিত শক্তাশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টি-ফাঙ্গাল প্রপাটিজ যেকোনো ধরনের স্কিন ইনফেকশন কামতে দারুন কাজে লাগে। 

স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর