• বুধবার   ১৪ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ১ ১৪২৮

  • || ০২ রমজান ১৪৪২

সাভারে সাবেক সেনা সদস্য হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন, গ্রেপ্তার ৩

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২ মার্চ ২০২১  

রাজধানীর সন্নিকটে সাভারে পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স লিমিটেডের হেড অফিসের সিকিউরিটি ইনচার্জ ও সাবেক সেনা সদস্য ফজলুল হক হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। এ ঘটনায় ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে বিষয়টি সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিশ্চিত করেছেন ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক নাজমুল হাসান।

গ্রেপ্তাররা হলেন-পাবনা জেলার আমিনপুর থানার টাংবাড়ি গ্রামের সাত্তার শেখের ছেলে মাসুম শেখ (৩৫), খুলনা জেলার সোনাডাঙা থানার রায়েরমহল গ্রামের মৃত শেখ কিসলু রহমানের ছেলে মোহাম্মদ জনি (৩২) ও পাবনা জেলার সুজানগর থানার উদয়পুর মিয়াবাড়ি গ্রামের মৃত আশু মিয়ার ছেলে আব্দুর রব মিয়া (৪২)। তারা সবাই রাজধানীর মিরপুরে থেকে অপহরণ ও হত্যাসহ বিভিন্ন অপরাধ করে আসছিলো।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তির তথ্যমতে, আসামিরা গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, মন্সিগঞ্জ, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ জেলার হাইওয়ে সড়কের পাশের বাজার ও বাস স্ট্যান্ড থেকে তাদের প্রাইভেটকারে যাত্রী ওঠাতো। পরে তাদের হাত পা বেঁধে মারধর করে চোখে কাল চশমা পরিয়ে দিতো। চশমার ভিতরে কাল টেপ মারা থাকতো, যেন অপহৃতরা বাহিরের কিছু দেখতে না পারে। এর পর শুরু হয় ছিনতাই ও পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায় করা। মুক্তিপণ পেলে অপহৃতদের নির্জন সড়কের পাশে ফেলে রেখে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে। আর মুক্তিপন না পেলে অথবা ভুক্তভোগী মোবাইল টাকা-পয়সা দিতে রাজি না হলে হত্যা করে একই কায়দায় সড়কের পাশে ফেলে যেতো।

জানা যায়, গত ২৪ জানুয়ারি সাভারের কমলাপুর এলাকার সড়কের পাশ থেকে পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স লিমিটেডের হেড অফিসের সিকিউরিটি ইনচার্জ ফজলুল হকের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে তদন্তভার ডিবি পুলিশের হাতে গেলে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে আসামিদের গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতদের দেওয়া তথ্যমতে, গত ২৩ জানুয়ারি সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জের উথুলি বাস স্ট্যান্ড থেকে মতিঝিল পৌছে দেওয়ার কথা বলে ফজলুলকে প্রাইভোটকারে ওঠায় আসামিরা। পরে তার কাছে থাকা মোবাইল ও টাকা ছিনিয়ে নিতে চাইলে ফজলুল হক বাঁধা দেন। এসময় তার হাত পা বেঁধে কাল চশমা পরিয়ে দেয় গ্রেপ্তারা। এসময় চিৎকার চেচামেচি করলে গলায় থাকা মাফলার দুই জন দুই দিকে টেনে ধরলে ফজলুল মারা যান। পরে সাভারের কমলাপুর এলাকায় মরদেহ ফেলে মিরপুরের দিকে চলে যায় তারা।

এ ব্যাপারে ঢাকা জেলা উত্তর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক নাজমুল হাসান জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের তথ্যের ভিত্তিতে অপহরণ ও ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত প্রাইভেটকারটি (ঢাকা মেট্টো-গ-২৫১৪০২) জব্দ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে আসামিরা স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দি দিয়েছেন।