• বৃহস্পতিবার   ১৫ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ২ ১৪২৮

  • || ০৩ রমজান ১৪৪২

স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার বিষয় জানতে পেরে কলেজছাত্রকে হত্যা

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার বিষয়টি জানতে পেরে বন্ধুদের নিয়ে অটোচালক কলেজছাত্র রুবেলকে হত্যা করেছে বলে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছেন আবু জাফর ওরফে আকাশ (২০) নামে এক যুবক।

শনিবার  দুপুরে গাজীপুর মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. জাকির হাসান সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।


তিনি বলেন, ‘আকাশ ও ভিক্টিম অটোরিকশা চালক রুবেল একই বাড়িতে থাকতেন। আকাশের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ার জেরে রুবেলের শত্রুতা শুরু হয়। এর জের ধরে বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাতে আকাশ তার অন্য তিন বন্ধুকে নিয়ে রুবেলকে হত্যা করে তার অটোরিকশাটি অন্যত্র বিক্রি করে দেন।’

জাকির হাসান আরও বলেন, ‘ঘটনার রাতে এক মেয়ের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কথা বলে পূর্ব পরিকল্পনা মতে তার অটোরিকশায় চড়ে আকাশ, শাকিল ও ফরহাদ। একপর্যায়ে তাকে কাশিমপুরের সারদাগঞ্জ পশ্চিমপাড়া এলাকায় নিয়ে যান। সেখানে তাকে হত্যার পর অটোরিকশা ও ব্যাটারি পৃথক করে বিক্রি করে দেন।’

পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) রাতে কাশিপুর থানার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ব্যাটারি ক্রেতা রাশেদ ও অন্য তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের দেয়া তথ্যমতে ব্যাটারি ও হত্যায় ব্যবহৃত একটি চাকু জব্দ করা হয়। তবে অটোরিকশাটি এখনো জব্দ করা সম্ভব হয়নি বলে জানান তিনি।

এসময় কোনাবাড়ি জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার থোয়াই অংপ্রু মারমা, কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবে খোদা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এ ঘটনায় গ্রেফতারকৃতরা হলেন, বগুড়ার শাহজাহানপুর থানার বড়তিন কুল গ্রামের ফরিদুল ইসলামের ছেলে আবু জাফর ওরফে আকাশ (২০), একই জেলা শহরের মালগ্রাম এলাকার মো. দেলোয়ার হোসেনের ছেলে জহিরুল ইসলাম ওরফে শাকিল (২০), জামালপুরের মেলান্দহ থানার হরিনাপাই গ্রামের মো. আশরাফ মিয়ার ছেলে মো. ফরহাদ হোসেন (২২) এবং (ব্যাটারি ক্রেতা) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর থানার টিয়ারা গ্রামের আব্দুর রহিমের ছেলে মো. রাশেদ আহমেদ (৪০)।

অন্যদিকে নিহত রুবেল (১৮) নওগাঁর রানীনগর থানার দেবরাগাড়ী এলাকার সিরাজুল ইসলামের ছেলে। তিনি মহানগরের কাশিমপুর ভবানীপুর এলাকায় ভাড়া থেকে অটোরিকশা চালাতেন।

এ বিষয়ে কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবে খোদা বলেন, ‘রুবেল ঢাকার সাভার এলাকার একটি কলেজের শিক্ষার্থী ছিল। করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে কলেজ বন্ধ থাকায় রুবেল ভবানীপুর এলাকায় বাসা ভাড়া থেকে অটোরিকশা চালাতন।’