• রোববার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১০ ১৪২৮

  • || ১৮ সফর ১৪৪৩

‘কাপ্তানবাজার থেকে মাছ নিয়ে ধানমন্ডি যেতে হবে কেন?’

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৫ জুলাই ২০২১  

কাপ্তানবাজার থেকে ধানমন্ডিতে মাছ নিয়ে যেতে হবে কেন? ধানমন্ডিতে কি বাজার নেই?’ ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার সময় র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট পলাশ কুমার বসু রাজধানীর শাহবাগ এলাকায় রিকশায় যাওয়া দুই যুবকের কাছে এমন প্রশ্ন করেন।

এ সময় তারা জানান, তারা ধানমন্ডির একটি রেস্টুরেন্টে মাছ সরবরাহ করতে যাচ্ছেন। কিন্তু এ সংক্রান্ত কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। এতে ম্যাজিস্ট্রেট তাদের জরিমানা করার নির্দেশ দেন। রোববার (২৫ জুলাই) দুপুর ১২টার পর এ দৃশ্য চোখে পড়ে।


চলমান লকডাউনের তৃতীয় দিনে আজ রোববার (২৫ জুলাই) রাজধানীর শাহবাগের চেকপোস্টে ম্যাজিষ্ট্রেট, র্যাব এবং পুলিশের উপস্থিতিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের কঠোর মনিটরিং চলছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ যানবাহন নিয়ে রাস্তায় বের হয়েছে কি না, মাস্ক পরিধানসহ প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে মানুষ রাস্তায় চলাচল করছে কি না তা কঠোরভাবে মনিটরিং করা হচ্ছে। সন্তোষজনক জবাব না পেলে যানবাহন ও ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

ঈদের ছুটি শেষে রোববার ব্যাংক, বীমা ও শেয়ারবাজারের কার্যক্রম শুরু হওয়ায় রাস্তায় যানবাহনের সংখ্যা গত দুদিনের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। শাহবাগ এলাকায় সকাল থেকে পুলিশের অপরাধ ও ট্রাফিক বিভাগ চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহন থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসুর নেতৃত্বে ভ্র্রাম্যমাণ আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়।

এ সময় শাহবাগ অভিমুখে আসা প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস, জিপ, মোটরসাইকেল ও রিকশাসহ বিভিন্ন যানবাহন থামিয়ে তাদের বাইরে বের হওয়ার কারণ জানতে চাওয়া হয়। শাহবাগ এলাকার আশপাশে কয়েকটি হাসপাতাল থাকায় অনেকেই হাসপাতালে এসেছেন বলে জানান। কেউ আবার ব্যাংক ও বীমা প্রতিষ্ঠানে কাজে যাচ্ছেন বলে জানান।


ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে যারা বের হয়েছেন তারাও নানা গুরুত্বপূর্ণ কাজ রয়েছে বলে জানান। তবে কেউ কেউ জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হয়েছেন বললেও এর পক্ষে প্রমাণ দেখাতে না পারায় তাদের জরিমানা করা হয়।

এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার বসু উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘লকডাউন চলাকালে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বের হওয়া যাবে না এমন নির্দেশনা থাকলেও অনেকে বের হচ্ছেন। কাপ্তানবাজার থেকে ধানমন্ডিতে মাছ নিয়ে যাচ্ছেন। কখন বাজার খোলা থাকবে, কতক্ষণের জন্য খোলা থাকবে তা নির্দেশনায় বলা রয়েছে। জরুরি এ মুহূর্তে কাপ্তানবাজার থেকে মাছ নিয়ে কেন ধানমন্ডিতে যেতে হবে?’