• বৃহস্পতিবার   ২৮ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ১৩ ১৪২৮

  • || ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

চলাচলের রাস্তা চেয়ে এলাকাবাসীর সংবাদ সম্মেলন

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১  

সাভারের আশুলিয়ায় এলাকাবাসী ও জনগণের চলাচলের একমাত্র সরকারি রেকর্ডকৃত ২০ ফুট প্রশস্ত রাস্তা দখলকারীর হাত থেকে মুক্ত করা ও অবৈধ স্থাপনা অপসারণের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভুক্তভোগীরা।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আশুলিয়া প্রেসক্লাব হলরুমে এ সংবাদ সম্মেলন করেন আশুলিয়ার বাইপাইলের বুড়ি বাজার এলাকাবাসী।

এলাকাবাসীর পক্ষে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মো. ফিরোজ কবির আকাশ। লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, বাইপাইল এলাকার তিনিসহ ইঞ্জিনিয়ার মো. রুহুল আমিন, মিসেস সালমা নাসরিন, ডা. রেহানা নাসরিন, মিসেস রুবানা নাসরিন, আর্কিটেক মো. নাফিজুর রহমান, প্রফেসর মেরিনা নাসরিন ও আছিয়া নাসরিন আশুলিয়ার বাইপাইলস্থ বুড়ির বাজার মেইনরোড সংলগ্ন সাব রোডে সাতজনের মালিকানাধীন ৪টি ভাড়াটিয়া কলোনিসহ একটি চারতলা বাড়ি রয়েছে। যেখানে প্রায় তিন শতাধিক মানুষের বসবাস। বাড়িগুলোতে যাতায়াতের জন্য বাড়ির সম্মুখ বরাবরে ২০ ফুট প্রশস্ত একটি রাস্তা ছিল। কিন্তু আশুলিয়ার উত্তর গাজীরটেক এলাকার আব্দুল খালেকের ছেলে মানিক মিয়া ১০ ফুট রাস্তা দখল করে কারখানা নির্মাণ করেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে বিএস রেকর্ডের সময় ১০ ফুট প্রশস্ত রাস্তা রেকর্ডভুক্ত হয়।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো জানান, কিন্তু দুই মাস আগে তিনি তিন শতাধিক মানুষের চলাচলের একমাত্র রাস্তাটির মাঝখানে একটি সেমিপাকা দোকান নির্মাণ করে রাস্তার বাকি অংশ বন্ধ করে দিয়েছেন। ফলে এখানে বসবাসরত অধিকাংশ শ্রমিক ভাড়া বাসা ছেড়ে দিয়ে অন্যত্র চলে গেছে ও বাড়ির মালিকরা বন্দি জীবনযাপন করছেন।  

এছাড়া সম্প্রতি মানিক মিয়া ওই রাস্তার পাশে বহুতল একটি ভবন নির্মাণ করছেন। যার উপকরণসমূহ রাস্তার ওপর রাখায় চলাচলের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছেন। এসব ঘটনায় গত ২২ আগস্ট আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ভুক্তভোগীরা।  

গত ৩১ আগস্ট সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দায়ের করলে গত ২ সেপ্টেম্বর বাইপাইল মৌজাস্থিত বুড়ির বাজার মেইন রোড সংলগ্ন সাব-রোডে বিআরএস ৪৫৭৭, ৪৫৭৫ এবং ৪৫৭৬ দাগের রেকর্ডীয় সরকারি রাস্তাটি পরিমাপ করে পূনরুদ্ধারের নির্দেশ দেন। এবং সাভার ক্যান্টনমেন্টে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণে জন্য ভুক্তোভোগীরা অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ক্যান্টনমেন্টের সি ই ও সরেজমিনে তদন্ত করে তার নির্মাণাধীন ভবনের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে সাতদিনের মধ্যে সশরীরে হাজির হয়ে বিষয়টি ব্যখ্যা দেওয়ার নির্দেশ দেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে সহকারী কমিশনার ভূমি আশুলিয়া সার্কেলকে প্রতিবেদন পাঠানোর জন্য অনুরোধ করেন।

তারা জানান, মানিক মিয়া গ্যাস সরবরাহ প্ইাপ লাইনের ওপর আবাসিক ভবণ নির্মাণ করেছেন। যেকোন মুহূতে দুর্ঘটনার সম্ভবনা রয়েছে। এসব অপর্কমের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের কাছে আহ্বান জানান তারা।
 
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থতি ছিলেন ভুক্তভোগী জাহাঙ্গীর আলম, ইঞ্জিনিয়ার রহুল আমীন, মো. সহীরউদ্দিন মিয়া, জহির উদ্দিন মিয়া প্রমুখ।