• মঙ্গলবার   ২৪ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

ধামরাইয়ে রাস্তা নির্মাণে বাঁধা! ১৩ গ্রামবাসীর অভিযোগ

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারি ২০২২  

সাভার প্রতিনিধি: ঢাকার ধামরাইয়ে সর্বসাধারণের যাতায়াতের রাস্তা নির্মাণে বাঁধা দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে নির্মাণাধীন আইপি গ্লোবাল ইন্ডাস্ট্রির বিরুদ্ধে। সরকারি অর্থায়নে ও ব্যবস্থাপনায় প্রায় দেড় কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণের কাজ সম্পন্ন হলেও মাত্র দেড়শ ফুট রাস্তা নির্মাণ বাঁধাপ্রাপ্ত হওয়ায় এ রাস্তাটি কোন কাজেই আসছেনা। এ সামান্য রাস্তাটুকু নির্মাণ না হওয়ায় ১৩টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ চলাচলে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে গত বৃহস্পতিবার (২০জানুয়ারি) এবং বুধবার ২৬ জানুয়ারি বিকেলে কৃষি অফিসার ও কাওয়ালিপাড়া তদন্ত কেন্দ্রে এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকি। কিন্তু এখনো রাস্তাটি খুলে দেয়নি আইপি গ্লোবাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিঃ।

ধামরাই উপজেলার আমতা ইউনিয়নের বড়নারায়ণপুর এলাকার ভুক্তভোগিরা জানান, বালিয়া ইউনিয়নের কামারপাড়া, জাঙ্গালিয়া, দূনিগ্রাম, মাদারপুর, সূত্রাপুর, তেলীগ্রাম, বাইচাইল, সুন্দর কাঁঠালিয়া, হিজলিখোলা, পাবরাইল, ভাবনহাটী, নান্দেশ্বরী ও বাউখন্ড এলাকার মানুষের কৃষিজমি রয়েছে বড়নারায়ণপুর মৌজায়। এছাড়া সাটুরিয়া বাজার, স্কুল কলেজ, নান্দেশ্বরী মাদ্রাসা, শহীদ টিম্বার অ্যান্ড “স” মিল, কয়েকটি কাস্টিং কড়াই কারখানায় মানুষ পায়ে হেঁটে এ মৌজার মাঝাখান দিয়েই চলাচল করা হতো। মানুষের যাতায়াতের সুবিধার জন্য উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বালিয়া ইউনিয়নের কামারপাড়া খেলার মাঠের পার্শ্বের এসবিবি রাস্তা থেকে একটি মাটির রাস্তা নির্মাণ প্রকল্পের কাজ শুরু করে। প্রায় দেড়কিলোমিটার রাস্তার পুরো কাজই শেষ হয়েছে।

শুধুমাত্র নির্মাণাধীন আইপি গ্লোবাল কারখানা কর্তৃপক্ষ বাঁধা দেয়ায় দেড়শত ফুট রাস্তা নির্মাণ না হওয়ায় পাকা সড়কের সঙ্গে সংযোগ হচ্ছে না। ফলে এ রাস্তাটি কোন কাজেই আসছেনা। মানুষের যাতায়াত ব্যহত হচ্ছে চরমভাবে। প্রতিকার চেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আরিফ হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, কৃষি অফিসার ও পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

কারখানার তদারকি কর্মকর্তা মোঃ লিটন মিয়া ও বাবু মিয়া বলেন, আমরা কারখানার আশপাশের সব জমি কিনব। তাই এ রাস্তা নির্মাণ হয়ে গেলে আমরা আর জমি কিনতে পারবো না। তাই আমাদের কারখানার পাশ দিয়ে এ রাস্তা নির্মাণ করতে দেয়া হবেনা।

ইউপি চেয়ারম্যান আরিফ হোসেন বলেন, আমি মালিকপক্ষের সঙ্গে কথা বলে আশানুরূপ কোন ফলাফল পাইনি। মনে হয় তারা কারখানার পাশ দিয়ে এ রাস্তা নির্মাণ করতে দেবে না।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকি বলেন, বিষয়টি সহকারি কমিশনারকে (ভুমি) দিয়ে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এবিষয়ে জানতে আইপি গ্লোবাল ইন্ডাস্ট্রির মালিককে তার মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।