• মঙ্গলবার   ০৫ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২১ ১৪২৯

  • || ০৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

সাভারের মহাসড়কে তীব্র যানজটের শঙ্কা

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৯ এপ্রিল ২০২২  

সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে গত কয়েক মাস ধরে চলছে উন্নয়ন কাজ। বিভিন্ন পয়েন্টে কাজ শেষ না হওয়ায় সড়কে যান চলাচলে রয়েছে ধীরগতি। এ অবস্থায় ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপে তীব্র যানজটের আশঙ্কা করছেন পরিবহন সংশ্লিষ্টরা। তবে হাইওয়ে ও ট্রাফিক পুলিশের দাবি, কিছুটা যানজট থাকলেও মানুষ নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরতে পারবেন। যানজট এড়ানোর জন্য সব ধরনের প্রস্তুতিও নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সদস্যরা।

সরেজমিন ও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কয়েক মাস ধরে সাভারের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের চার লেনের কাজ চলছে। সাভার বাসস্ট্যান্ড ও আশপাশের এলাকায় কাজ শেষ পর্যায়ে থাকলেও ধামরাই এলাকায় এখনও অধিকাংশ কাজ শেষ করা হয়নি। অন্যদিকে আব্দুল্লাহপুর-বাইপাইল সড়কে জিরাবো, জামগড়া ও ইউনিকসহ বেশ কিছু বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গত কয়েক বছর ধরে তেমন কোনও সংস্কার কাজ না করায় সড়কের বেহাল অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। এই সড়কে প্রায় প্রতিদিনই যানজট লেগে রয়েছে।  

ফাহমিদা এক্সপ্রেস পরিবহনের চালক বাবুল আহম্মেদ বলেন, গত পাঁচ থেকে আট বছর ধরে নবীনগর-টাঙ্গাইল মহাসড়ক দিয়ে যাত্রীবাহী বাস চালায়। সবসময় ঈদের মধ্যে এই সড়কে যানজট লেগেই থাকে। কখনও চন্দ্রা থেকে এই যানজট সাভারের নবীনগর এলাকা পর্যন্ত এসে ঠেকে। গতবারের তুলনায় এবারের ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপ বেশি থাকবে। মহাসড়কের বাসস্ট্যান্ড এলাকাগুলোতে ধীরগতিতে যাত্রী উঠানামা করাসহ বিভিন্ন কারণে সাভারে যানজটের ভোগান্তিতে পড়তে হতে পারে বলে তিনি জানান।

বাইপাইল এলাকার আলহামরা পরিবহনের কাউন্টার মালিক রাকিব হাসান বলেন, করোনার কারণে গত ঈদে মানুষ ঠিকমতো বাড়ি ফিরতে পারেনি। তাই এবারের ঈদে অধিকাংশ মানুষ গ্রামে গিয়ে সবার সঙ্গে ঈদ করার জন্য ব্যাকুল হয়ে রয়েছেন। যাত্রীদের অতিরিক্ত চাপের কারণে সাভারের সড়কগুলোতে যানজটে ভোগান্তি হতে পারে ঘরমুখো মানুষের।

শতাব্দী পরিবহনের মালিক সমিতির উপদেষ্টা আব্দুল মোতালেব বলেন, প্রতি ঈদেই সাভারের সড়কগুলোতে যানজটে পড়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা বসে থাকতে হয়। এবারও যানজটে ভোগান্তি পোহাতে হতে পারে ঘরমুখো যাত্রীদের। তবে সাভারের মহাসড়কগুলোতে পুলিশ যদি শক্ত ভূমিকায় থাকে তাহলে যানজট নিয়ন্ত্রণে থাকতে পারে। সে ক্ষেত্রে নির্দিষ্ট বাসস্ট্যান্ড ছাড়া যাত্রী উঠানামা বন্ধসহ বাসস্ট্যান্ড এলাকাগুলোতে ধীরগতিতে যাত্রী উঠানামাও রোধ করতে হবে। 

তবে সাভার শিল্প এলাকা হওয়া পোশাক কারখানাগুলো ধাপে ধাপে বন্ধসহ যানজট নিয়ন্ত্রণের জন্য পুলিশের পরিকল্পিত ভূমিকা দরকার বলে জানান তিনি।

সাভার হাইওয়ে থানার ওসি আতিকুর রহমান বলেন, গত ঈদের তুলনায় এবার মানুষের চাপ একটু বেশি থাকবে। এছাড়া ঈদে যানজট থাকা একটি সাধারণ বিষয়। কারণ, এই সময়ে সব মানুষ একসঙ্গে বাড়ি ফিরেন। সে কারণে মানুষের চাপে যানজট হওয়া স্বাভাবিক বিষয়। তবে মানুষ যেন নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরতে পারে সে জন্য মহাসড়কের প্রতিটি পয়েন্টে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে। এছাড়াও যানজট ছাড়াই এবার মানুষ বাড়ি ফিরতে পারবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন ।

সাভার ট্রাফিক জোনের ইন্সপেক্টর আব্দুস সালাম বলেন, ঈদে যানজট হবে এটাই স্বাভাবিক। তবে যানজট নিয়ন্ত্রণে পুলিশ সদস্যরা সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছেন। ঘরমুখো মানুষ নির্বিঘ্নে বাড়ি ফিরতে পারবে বলে আশ্বস্ত করেন তিনি।