• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২১ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাবি’র ভিসি প্যানেল নির্বাচনে আওয়ামীপন্থিদের ৩ প্যানেল ঘোষণা

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১১ আগস্ট ২০২২  

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনের জন্য প্যানেল ঘোষণা করেছে ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ ও ‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ’। 

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে আওয়ামীপন্থি শিক্ষক পরিষদ নিজেদের প্যানেল ঘোষণা করে। এতে নির্বাচনে লড়বে আওয়ামীপন্থিদের তিনটি প্যানেল।

জানা গেছে, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ থেকে একটি এবং  ‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ’ থেকে দুইটি প্যানেল ঘোষণা করা হয়েছে।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই ভাগে বিভক্ত বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদের এক অংশের নেতৃত্বে আছেন বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক নূরুল আলম ও সংগঠনের সভাপতি অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার এবং অপর অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি অধ্যাপক মুহম্মদ হানিফ আলী ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক খালিদ কুদ্দুস।

অধ্যাপক আমির হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ প্যানেলে আরও রয়েছেন অধ্যাপক সুফি মোস্তাফিজুর রহমান ও অধ্যাপক পৃথ্বিলা নাজনীন নীলিমা।

এদিকে ‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ’ একাংশ থেকে প্যানেলে নির্বাচন করবেন বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক মো. নূরুল আলম, অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার ও অধ্যাপক লায়েক সাজ্জাদ এন্দেল্লাহ।

সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামপন্থি বলে পরিচিত অপর অংশ থেকে অধ্যাপক আব্দুল্লাহ হেল কাফীর নেতৃত্বে নির্বাচনে অংশ নিবেন অধ্যাপক মো. মোতাহার হোসেন ও অধ্যাপক তপন কুমার সাহা।

অধ্যাপক আমির হোসেন, অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার ও অধ্যাপক মো. মোতাহার হোসেন  বিষয়টি এনটিভি অনলাইনকে নিশ্চিত করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একমাত্র মুক্তিযোদ্ধা শিক্ষক অধ্যাপক আমির হোসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক উপ-উপাচার্য (প্রশাসন)। তিনি সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সর্বশেষ নির্বাচিত ডিনের দায়িত্ব পালন করেছেন এবং আওয়ামীপন্থি শিক্ষদের একাংশের সংগঠন ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’-এর সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। সর্বশেষ ২০১৪ সালে উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক শরীফ এনামুল কবির প্যানেল থেকে তৃতীয় হয়েছিলেন।

একই প্যানেলের প্রার্থী অধ্যাপক সুফি মোস্তাফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও বর্তমানে প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষক। মুক্তিযোদ্ধা পরিবারে বেড়ে ওঠা অধ্যাপক সুফি মোস্তাফিজুর রহমান দেশের প্রত্নসম্পদ আবিষ্কারে বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন। তাঁর নেতৃত্বে ২০০০ সালে নরসিংদীর বেলাবো ও শিবপুর উপজেলায় অবস্থিত উয়ারী ও বটেশ্বর গ্রাম প্রত্নতাত্ত্বিক খনন পরিচালনা করে বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্য আবিস্কার করেন। তিনি বর্তমানে বিশ্বিবদ্যালয়ের সিনেট সদস্য ও শিক্ষক সমিতির গত কমিটির কার্যকরী সদস্য।  

এ ছাড়াও তিনি আর্ন্তজাতিক জাদুঘর পরিষদ (আইকম) বাংলাদেশের সভাপতি এবং সাবেক সেক্রেটারি, বাংলাদেশ ইতিহাস সমিতির কার্যকরী সদস্য, জন ইতিহাস চর্চাকেন্দ্রের উপদেষ্টা, এশিয়াটিক সোসাইটি হেরিটেজ জাদুঘর ও বরেন্দ্র গবেষণা জাদুঘরের উপদেষ্টার দায়িত্ব পালন করছেন। 

বাংলা বিভাগের ১০ম ব্যাচের শিক্ষার্থী ও বর্তমান অধ্যাপক পৃথ্বিলা নাজনীন নীলিমা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সিনেট সদস্য ও জাহানারা ইমাম হলের প্রভেস্টের দায়িত্ব পালন করেছেন। 

‘বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ’ থেকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া অধ্যাপক নূরুল আলম বর্তমানে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সাময়িক উপাচার্য ও উপ-উপাচার্য (শিক্ষা)। শিক্ষক সমিতির সভাপতি, গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ডিনসহ তিনি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছেন। এ ছাড়া তিনি বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি।

অধ্যাপক অজিত কুমার মজুমদার বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদের বর্তমান সভাপতি এবং গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ডিন। তিনি শিক্ষক সমিতির ছয় ছয়বারের নির্বাচিত সভাপতি৷

একই প্যানেলের অধ্যাপক লায়েক সাজ্জাদ এদেল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষক সমিতির সভাপতি। একইসঙ্গে তিনি জাবির সিনেট ও সিন্ডিকেট সদস্য। এ ছাড়াও তিনি খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুয়েট)  সিন্ডিকেট সদস্য। 

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক আব্দুল্লাহ হেল কাফী বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি ও বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের প্রভোস্ট। 

প্যানেলের আরেক প্রার্থী অধ্যাপক মোতাহার হোসেন ইনস্টিটিউট অব বিজনেস এডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ)-এর শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সম্পাদক। এ ছাড়া তিনি বেগম সুফিয়া কামাল হলের প্রভোস্টের দায়িত্বে আছেন। প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি, আইবিএ-এর পরিচালকসহ বিভিন্ন হলে ওয়ার্ডেন ও হাউজ টিউটরের দায়িত্ব পালন করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ও রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক তপন কুমার সাহা। তপন কুমার সাহা বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রতিষ্ঠাকালীন প্রভোস্ট এবং শিক্ষক সমিতির কার্যকরী সদস্য ছিলেন। ফিজিক্যাল সায়েন্স সেকশনে ২০১৩ সালে ইউজিসি অ্যাওয়ার্ড পান তিনি। এ ছাড়া তিনি নির্বাচিত সিনেট সদস্য। 

এদিকে, ভিসি প্যানেল নির্বাচনে অনেকটাই নিশ্চুপ বিএনপিপন্থি শিক্ষকরা। বিএনপিপন্থিদের থেকে একটি পূর্ণ প্যানেল আসার গুঞ্জন থাকলেও এখন পর্যন্ত এবিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি তারা।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ৮ বছর পর আগামীকাল শুক্রবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষ সিনেট সভায় অনুষ্ঠিত হবে উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন।