• সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৯

  • || ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

আশুলিয়ায় বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুরের অভিযোগ

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ৩ সেপ্টেম্বর ২০২২  

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আশুলিয়া থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি খলিল প্রধানের অফিসে ঢুকে বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর এর অভিযোগ উঠেছে এক বিএনপি নেতার ছেলের বিরুদ্ধে।

শনিবার(০৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেন আশুলিয়া থানার এসআই মাসুদ আল মামুন।

এর আগে গতকাল শুক্রবার(০২ সেপ্টেম্বর) রাত ৮ টার দিকে আশুলিয়ার চিত্রশাইল এলাকায় খলিল প্রধানের নিজ বাড়িতে এ ভাংচুরের ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে দেখা যায়, অফিসের ভেতর ভাংচুর করা আসবাবপত্র এদিক সেদিক ছিটিয়ে রয়েছে। অফিস ভাংচুরের পর ছাত্রলীগ নেতার বাড়ি ও পার্শ্ববর্তী আরও দুটি বাড়ির প্রায় ১৫ টি জানালার গ্লাস ভাঙ্গা।

ছাত্রলীগ নেতা খলিল প্রধান বলেন, আমরা ভাইয়েরা এবং আমার বাবা কেউই বাড়িতে ছিলনা। ৮ টার দিকে আমার অফিসে এসে হামলা চালায় বিএনপি নেতার ছেলে নয়ন। এসময় তার সাথে সহযোগী ৬০-৭০ জন দেশীয় অস্ত্র হাতে হামলায় অংশ নেয়। নয়নের ছাত্রদলের সাথে সম্পৃক্ততা আছে।

খলিল প্রধান বলেন, আমরা শীর্ষ স্থানীয় নেতাদের নির্দেশে বিএনপির নৈরাজ্য ঠেকাতে এলাকায় মিছিল মিটিং করি। হয়ত এ কারণেই আমাদের উপর ক্ষোভ জন্মেছে তাদের। তারা আমাদের উসকানী মূলক কথা বলে যাচ্ছে। এলাকায় আধিপত্য দেখাতেই এই কাজ করেছে তারা। ৩-৪ দিন আগেও তারা এলাকায় শোডাউন দিয়েছে।

ভুক্তভোগীরা জানায়, নয়ন স্থানীয় ইয়ারপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড বিএনপির সহ-সভাপতি আব্দুল আলীর ছেলে। তার মামা নাজির উদ্দিন একই কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও বড় মামা আশুলিয়া থানা বিএনপির উপদেষ্টা , তার ছোট মামা রোকন জামায়াত এর সাথে সংশ্লিষ্ট, জামায়াতের ভাংচুর মামলায় সে ১০ থেকে ১২ বার গ্রেফতার হয়েছে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত নয়নের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারটি বন্ধ পাওয়া যায়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাজু মন্ডল বলেন, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিকভাবে তদন্তে পেয়েছি পূর্বশত্রুার জেরে ছাত্রলীগনেতা খলিল প্রধানের অফিসে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় হামলাকারীরা আওয়ামী লীগ নেতার অফিস ও পার্শ্ববর্তী কয়েক বাড়ির জানালার গ্লাসও ভাংচুর করে