• বুধবার   ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৯ ১৪২৯

  • || ১০ রজব ১৪৪৪

কেরানীগঞ্জ থেকে অপহৃত ৪ বছরের শিশু চকবাজারে উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৮ ডিসেম্বর ২০২২  

কেরানীগঞ্জের আগানগর ইস্পাহানি এলাকা থেকে অপহৃত ৪ বছরের শিশুকে মঙ্গলবার দুপুরে পুরান ঢাকার চকবাজার হতে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১০।

এ সময় অপহরণের মূলহোতা শিশুটির আপন ফুফাতো ভাই বিল্লাল (২২), তার দুই সহযোগী সাগর (২২) ও জুয়েলকে (২২) গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় কেরানীগঞ্জস্থ রাজেন্দ্রপুরে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক (সিও) অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন লিখিত বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

লিখিত বক্তব্যে র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক বলেন, গত ২৬ ডিসেম্বর আনুমানিক সন্ধ্যা ৬টার দিকে আটক বিল্লাল হোসেন তার আপন মামাতো বোন নূনিয়াকে চকলেট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে অপহরণ করে।


বিল্লাল পূর্বপরিকল্পিতভাবে মুক্তিপণ আদায়ের উদ্দেশে ভিকটিম’ নূনিয়াকে প্রথমে জিঞ্জিরা ফেরিঘাটে নিয়ে যায়। এরপর সে তার অপর দুই সহযোগী সাগর ও জুয়েলকে সেখানে ডেকে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে সাগর এসে তাদের পূর্বপরিকল্পনা মোতাবেক ভিকটিমের বাবা মো. দেলোয়ার হোসেনকে আনুমানিক সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ফোন করে তার মেয়েকে অপহরণের বিষয়ে জানায় এবং তার মেয়েকে জীবিত ফেরত পাওয়ার জন্য পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। ভিকটিমের বাবা অপরহণকারীদের দাবিকৃত টাকা সংগ্রহ করতে না পেরে নিরুপায় হয়ে ঢাকা জেলার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।
র‌্যাব-১০ এর পরিচালক অতিরিক্ত ডিআইজি মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন জানান, বিষয়টি অবগত হয়ে অপহৃত ভিকটিমকে উদ্ধার ও অপহরণকারীদের গ্রেপ্তার করতে ছায়া তদন্ত ও গোয়েন্দা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়। শিশু নূনিয়া অপহরণের মাত্র ২৪ ঘণ্টার মধ্যে মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) ভোরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১০ এর একটি আভিযানিক দল রাজধানী ঢাকার চকবাজার থানাধীন সোয়ারীঘাট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে অপহৃত ভিকটিম নূনিয়াকে উদ্ধারসহ ৩ অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে অপহরণ কাজে ব্যবহৃত সিম ও ৩টি মোবাইল ফোন জব্দ করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা উক্ত অপহরণের সঙ্গে তাদের সম্পৃক্ততার সত্যতা স্বীকার করেছে।

ভিকটিমের বাবা মো. দেলোয়ার হোসেন বলেন, আমি র‌্যাব-১০ এর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। র‌্যাব- ১০ অল্প সময়ে অক্ষত অবস্থায় আমার শিশু কন্যাকে উদ্ধার করে দিয়েছেন। আমি আল্লাহর দরবারে তাদের জন্য দোয়া করি।  

এ ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।