• শনিবার ২০ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৫ ১৪৩১

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৬

চারটি রাজধনেশ পাখি উদ্ধার, দুজনের ৬ মাসের কারাদণ্ড

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৬ মে ২০২৩  

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে বিলুপ্ত প্রজাতির রাজধনেশ পাখি পাচারের দায়ে দুজনকে ছয় মাস করে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শুক্রবার (২৬ মে) দুপুরে বাঁশখালী থানার সামনে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খোন্দকার মাহমুদুল হাসান তাদের এ দণ্ড দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত দুই ব্যক্তি হলেন বাগেরহাটের মৃত ফজলুল হকের ছেলে মো. মিজানুর রহমান (৪২) এবং কক্সবাজারের মৃত আবদুল মালেকের ছেলে মো. সেলিম (৪৩)। এর আগে বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে পিএবি (পটিয়া-আনোয়ারা-বাঁশখালী) সড়ক দিয়ে পাচারের সময় রাজধনেশ পাখিসহ ওই দুজনকে আটক করে পুলিশ। উদ্ধার পাখিগুলো বনবিভাগের মাধ্যমে চট্টগ্রাম ফয়স লেক চিড়িয়াখানায় পাঠানো হয়েছে।

আটকরা জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, রাজধনেশ পাখির তেল ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। এজন্য বিদেশে পাচার করা হয় এই পাখি। উদ্ধার চারটি পাখির দাম আট লাখ টাকা। আটকরা আরও জানান, পাখিগুলো মিয়ানমার হয়ে বান্দরবান জেলার আলীকদমে আনা হয়। আলীকদম থেকে চার হাজার টাকা গাড়ি ভাড়া ও সাত হাজার টাকা মজুরিতে পাখিগুলো সাতক্ষীরা নিয়ে যাচ্ছিলেন।

বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ) রফিকুল ইসলাম চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, রাজধনেশ পাচার হচ্ছে বলে আমাদের কাছে গোপন সংবাদ ছিল। পুলিশের কাছেও সংবাদটি ছিল। মূলত অভিযানটি  পুলিশ চালিয়েছে। আমরা সহযোগিতা করেছি। অভিযানে দুই পাচারকারীকে আটক এবং চারটি রাজধনেশ উদ্ধার করা হয়।