• শনিবার ২৫ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪৩১

  • || ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪৫

বিশেষ অঙ্গ কেটে দেওয়ার অভিযোগ

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১৫ মে ২০২৪  

পূর্বশত্রুতার জের ধরে মানিকগঞ্জে এক যুবকের পুরুষাঙ্গ কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে সদর উপজেলার ফাঁড়িরচর এলাকায়। ওই যুবক বর্তমানে মানিকগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীনে রয়েছেন। ভুক্তভোগী ইয়াসিন মাহমুদ (২৬) মানিকগঞ্জ জেলার আটিগ্রাম ইউনিয়নের ফাড়িরচর এলাকার মো. ফজল হকের ছেলে।

ভুক্তভোগীর পরিবারের সদস্যরা জানান, ইয়াছিন মাহমুদের সঙ্গে প্রতিবেশী মৃত সামছুল মল্লিকের ছেলে হাবু মল্লিক (৩০), আমান উল্লাহ (৪৫), মোন্নাফ মল্লিক (৫০) ও আমান উল্লাহর মেয়ে সুমাইয়ার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পূর্ববিরোধ ছিল। এর জেরে একাধিকবার ইয়াছিনকে মারধরের হুমকি দিয়েছিল তারা। গত শনিবার ঢাকার ধামরাই উপজেলার কালামপুরে গ্রিলের কাজ শেষে রাতে বাড়ি ফিরছিলেন ইয়াছিন। রাত সাড়ে ৮টার দিকে সদর থানার ফাঁড়িরচর এলাকার আলমের বাড়ির কাছে কাছে পৌঁছলে হাবু মল্লিক, আমান উল্লাহ, মোন্নাফ মল্লিক ও সুমাইয়াসহ অজ্ঞাতনামা আরও ২-৩ জন ইয়াছিনের পথরোধ করেন। পরে জোর করে তারা ইয়াছিনকে বাঁশ বাগানের ভেতরে নিয়ে যান।

একপর্যায়ে বাঁশের লাঠি ও কাঠের বাটাম দিয়ে ভুক্তভোগীকে এলোপাতাড়ি মারধর করা হয়। এছাড়া গলায় ধারালো দা ধরে হত্যার ভয় দেখিয়ে ব্লেড দিয়ে পুরুষাঙ্গের অধিকাংশ কেটে ফেলা হয়। পরে ভুক্তভোগী দৌড়ে ঘটনাস্থলের অদূরে নিজের বাড়িতে চলে যান। পরিবারের সদস্য মারাত্মকভাবে আহত অবস্থায় তাকে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে দুই দিন চিকিৎসা নেওয়ার পর মানিকগঞ্জের ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে এনে ভর্তি করা হয় ইয়াছিনকে।

ভুক্তভোগীর ভাই মো. আনোয়ার বলেন, বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ইয়াছিনের সঙ্গে প্রতিবেশী হাবু মল্লিক, আমান উল্লাহ, মোন্নাফ মল্লিক ও সুমাইয়ার বিরোধ ছিল। এর আগেও একাধিকবার তারা ইয়াছিনকে মারধর করার হুমকি দিয়েছিল। এবার তারা ইয়াছিনকে মেরে ফেলার চেষ্টা করে। অভিযোগ লেখা শেষ এখন থানায় গিয়ে আমরা মামলা করব। এ বিষয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানার ওসি হাবিল হোসেন বলেন, এখনো কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।