• শনিবার ২০ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৫ ১৪৩১

  • || ১২ মুহররম ১৪৪৬

সড়ক দিয়ে হাঁটা যায় না!

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১০ জুলাই ২০২৪  

দীর্ঘদিন ধরে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া-সাবান ফ্যাক্টরি-রাজেন্দ্রপুর সড়কের বিভিন্ন জায়গায় খানাখন্দ আর বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি হলে এসব স্থানে হাঁটু পানি জমে যায়। নামমাত্র ড্রেন লাইন থাকলেও সেখানে ময়লা আবর্জনা জমে পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে গেছে। ফলে এ সড়কে বৃষ্টির পানির পাশাপাশি ড্রেনের নোংরা পানিতে সয়লাব হয়ে থাকে। 

এছাড়া কয়েকটি স্থানে কাদামাটি এমন অবস্থায় রয়েছে যে রাস্তাটি দিয়ে হাঁটাও সম্ভব হয় না। বুধবার সরেজমিনে এ সড়ক ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে। সড়কের দৈর্ঘ্য আনুমানিক ৫ কিলোমিটার। চুনকুটিয়া থেকে শ্মশান পর্যন্ত ইটের সলিং থাকলেও বেশিরভাগ জায়গায় উঠে গেছে। শ্মশান ঘাটের কার্লভার্ট পেরিয়ে বামে রাজেন্দ্রপুর পর্যন্ত কাদামাটির রাস্তা। এটি গিয়ে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে মিশেছে।  সড়কের দুরবস্থায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। সাবান ফ্যাক্টরি এলাকার বাসিন্দা গৃহবধূ সাবিনা আক্তার বলেন, রাস্তায় পানি জমে আছে। বাচ্চাদের স্কুলে দিতে সমস্যা হচ্ছে। বাসা থেকে বের হলেই নোংরা পানি। অনেকদিন ধরেই সড়কের এমন অবস্থা। 

ওই সড়কের মাঝামাঝি কাচারী এলাকায় রয়েছে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এসিল্যান্ড অফিস ও শুভাঢ্যা ইউনিয়ন ভূমি অফিস। প্রতিদিন শত শত সেবা প্রত্যাশীকে ভাঙাচোরা সড়ক পাড়ি দিয়ে সেবা নিতে আসতে হয়। এসিল্যান্ড অফিসের একজন কর্মচারী জানান, সেবা গ্রহীতার পাশাপাশি আমাদেরও অফিসে আসা যাওয়ায় কষ্ট হয়। স্থানীয় ব্যবসায়ী মিরাজুর রহমান সুমন বলেন, সড়কের এমন অবস্থায় কোনো কাস্টমার এদিকে আসতে চায় না। পানির নিচে থাকা খানাখন্দে পড়ে অনেকে আহত হয়েছেন। মাঝে মাঝে অটোরিকশা ভ্যান উল্টে যায়।

এ বিষয়ে শুভাঢ্যা ইউপি চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেনের বক্তব্য জানতে তার মোবাইলে একাধিক বার কল করা হলেও তিনি সাড়া দেননি। কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবু রিয়াদ বলেন, শিগগির সড়কের সংস্থার কাজ শুরু হবে। কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ বলেন, মানুষের কষ্ট হচ্ছে। আর একটু ধৈর্য ধরতে হবে। আগামী মাসে এ সড়কের দরপত্র আহ্বান করা হবে। শিগগির সড়কের নির্মাণ কাজও শুরু। সড়কের প্রস্থ হবে ৬৫ ফুট। দৃষ্টিনন্দন একটি সড়ক হবে এটি।