• মঙ্গলবার   ১৬ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯

  • || ১৮ মুহররম ১৪৪৪

কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে প্রাথমিকের সরকারি বই

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

বছরের প্রথম দিন যখন সরকার কোমলমতি শিক্ষার্থীদের হাতে তুলে দিচ্ছে নতুন বই, তখন সেই বই কেজি দরে বিক্রি করে দিচ্ছে স্কুলের প্রধান শিক্ষক। সরেজমিন পরিদর্শন করে এমন গুরুতর অন্যায়ের প্রমাণ মিলেছে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বহুরিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে।

 বস্তাবন্দি করারত অবস্থায় পাওয়া যায় প্রায় কয়েক বস্তা বই। যদিও হাতেনাতে ধরার পরও বিষয়টি অস্বীকার করছেন স্কুলের প্রধান শিক্ষক কাজী গোলাম সারোয়ার। তিনি জানান, বইগুলো গুছিয়ে রাখা হচ্ছে গুদাম ঘরে রাখার জন্য। কিন্তু নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই পুরনো বই ক্রেতাদের একজন জানান, ৮ টাকা দরে ওই বইগুলো কিনেছেন তিনি। সে হিসাবে প্রধান শিক্ষক তার কাছ থেকে বুঝে নিয়েছেন ২,৭৫০ টাকা। যেখানে পুরনো বইসহ এ বছরের নতুন বইও রয়েছে।

যদিও নতুন কিংবা পুরনো সব বই-ই যথাসময়ে শিক্ষা অফিস বরাবর ফেরত দেয়ার কথা। ওই পুরনো বই ক্রেতা আরও জানান, উপজেলার অধিকাংশ স্কুলই এভাবে বই বিক্রি করে থাকে। ৫ থেকে ৮ টাকা দরে এই বইগুলো কিনে থাকেন তারা। তবে এগুলো বিক্রয় করা যে অবৈধ তা জানেন না পুরনো বই ক্রেতা স্বল্প শিক্ষিত ওই ব্যক্তি। এ ব্যাপারে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন জানান, বিষয়টি তার জানা নেই। তবে বিষয়টি তিনি খোঁজ নিয়ে দেখবেন বলে জানান।

মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল মালেক জানান, সরকারি নতুন কিংবা পুরাতন বই কোনোটাই বিক্রি করে দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। যদি কেউ এ কাজ করে থাকে তবে তা তদন্ত করে দেখা হবে এবং দোষী প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।