• সোমবার   ২৩ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

‘১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের সব বাজার পলিথিনমুক্ত হবে’

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারি ২০২২  

আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের সব বাজার পলিথিনমুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র এম রেজাউল করিম।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) টাইগারপাসস্থ অস্থায়ী নগর ভবনে সম্মেলন কক্ষে চসিক পরিচালিত নগরের বিভিন্ন বাজার কমিটির প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা জানান।

সিটি মেয়র বলেন, আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নগরের বাজারগুলোতে কমিটির উদ্যোগে মাইকিং, পোস্টার, ফেস্টুন, ব্যানার, লিফলেটসহ সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা চালানো হবে। এ সময় স্থানীয় কাউন্সিলররা বাজার কমিটির সঙ্গে সমন্বয় করে প্রচার-প্রচারণায় অংশগ্রহণ করবেন। এরপর চসিকের ম্যাজিস্ট্রেটরা বাজার পরিদর্শন করে ব্যবসায়ীদের নির্দেশনা ও সতর্কতা প্রদান করবেন। ১৫ ফেব্রুয়ারির পর থেকে বাজারে কোনো পলিথিন পাওয়া গেলে তাদের জরিমানাসহ শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি আরও বলেন, পলিথিন নগরবাসীর জন্য একটি অভিশাপ। এ পলিথিনের কারণে নগরীর জলাবদ্ধতা থেকে পরিত্রাণ পাওয়া কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। পলিথিনের কারণে নালা-নর্দমায় পানি জমে মশার প্রজনন অতিমাত্রায় বেড়ে গেছে। সবচেয়ে বড় কথা হলো পলিথিন কর্ণফুলী নদীর তলদেশে জমাট হয়ে আট ফুটের বেশি শক্ত স্তর তৈরি করেছে। যা কর্ণফুলী নদীতে ড্রেজিং করতে গিয়ে মারাত্মক ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে।

মেয়র বলেন, নেদারল্যান্ডস থেকে অত্যাধুনিক মেশিন এনেও নদীর পুরু পলিথিনের স্তর ভেদ করে ড্রেজিং সম্পন্ন কঠিন হয়ে পড়ছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে অচিরে কর্ণফুলী নাব্যতা হারিয়ে মরা নদীতে পরিণত হবে। এই নদীর পানি প্রবাহ বন্ধ হয়ে গেলে চট্টগ্রাম বন্দর কার্যকারিতা হারাবে। এর পরিণাম ভয়াবহ হয়ে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দেবে। তাই এই অবস্থায় পরিবেশের ক্যান্সার এ পলিথিন ব্যবহার বন্ধ করা সময়ের দাবিতে পরিণত হয়েছে।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে চসিকের পরিবেশ স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ও কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন বলেন, এর আগে চসিকের উদ্যোগে পরীক্ষামূলকভাবে কাজীর দেউরী, চকবাজার ও কর্ণফুলী মার্কেটে শতভাগ পলিথিনমুক্ত করা হয়েছে। এ কাজ করতে গিয়ে ব্যবসায়ীদের যে সহযোগিতা পাওয়া গেছে তা অভিনন্দনযোগ্য।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- প্যানেল মেয়র মো. গিয়াস উদ্দিন, কাউন্সিলর আবদুস সালাম মাসুম, মো. শফিকুল ইসলাম, ভারপ্রাপ্ত সচিব ও প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. নজরুল ইসলাম, মেয়রের একান্ত সচিব মুহাম্মদ আবুল হাশেম ও বিভিন্ন বাজার কমিটির নেতারা।