• সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯

  • || ১৭ মুহররম ১৪৪৪

টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের নিয়ামক তথ্যপ্রযুক্তি

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২১ জানুয়ারি ২০১৯  

একটি কার্যকর, তথ্যনির্ভর, বহুল ব্যবহৃত, সমন্বিত এসডিজি পরিবীক্ষণ কাঠামো টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জনে মূল ভূমিকা পালন করতে পারে বলে মনে করছেন তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা-২০৩০ এর অর্জনের অন্যতম নিয়ামক হচ্ছে তথ্য-উপাত্তনির্ভর সিদ্ধান্ত গ্রহণ এবং প্রাধিকারভিত্তিক সম্পদের বরাদ্দ।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আমাদের ভিশন ডকুমেন্টগুলো এমনভাবে তৈরি করা হচ্ছে যাতে এসডিজি অর্জন সহজ হয়। এসডিজি অর্জনে সরকারের অবস্থান ও অগ্রগতি পরিমাপ এবং উন্নয়ন নীতি বাস্তবায়নে তথ্য-উপাত্তের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে এটুআই কর্তৃক নির্মিত হয় এসডিজি ট্র্যাকার। এসডিজি ট্র্যাকারকে আরও কার্যকরী, আরও ভিজুয়ালাইজড স্কিম, সবার ব্যবহারবান্ধব ও চাহিদা মোতাবেক করার পরামর্শ প্রদান করন, পাশাপাশি ডাটা হালনাগাদ ও ডাটার গুণগত মান বজায় রাখতে হবে।

২০১৬ থেকে জাতিসংঘের উন্নয়ন সংস্থা হিসেবে ইউএনডিপি বাংলাদেশসহ আরও ১৭০টি দেশে এসডিজি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইউএনডিপি বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জি।

তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এসডিজি সম্পর্কিত সব কার্যক্রম সমন্বয় করছে এবং পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ নির্মাণের মাধ্যমে এসডিজি ট্র্যাকার বাস্তবায়নে প্রযুক্তিগত সহায়তা নিশ্চিত করছে। ইউএনডিপি এসডিজি ট্র্যাকার বাস্তবায়নে এটুআইকে প্রযুক্তিগত সহায়তা করছে এবং এটুআই অন্যান্য স্টেক হোল্ডারদের সঙ্গে ট্র্যাকার উন্নয়নে সমর্থন দেয়।

জাতীয় উন্নয়নের তথ্য পাওয়া সহজ করার জন্য এসডিজি ট্র্যাকারকে একটি অগ্রগতি ট্র্যাকিং এবং রিপোর্টিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবে কাজ করানোর জন্যে এসডিজি থিমেটিক এরিয়া বিশ্লেষণ করা দরকার বলে মনে করছেন তিনি।

ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে এসডিজি ট্র্যাকার একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে বিবেচনা করে এর সঙ্গে এসডিজি বাস্তবায়নে বেসরকারি খাতে যোগদান করা উচিত বলে মনে করছেন অন্যান্য প্রযুক্তিবিদরা।