• শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৭ ১৪২৯

  • || ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

প্রশ্নফাঁস ও দুর্নীতি রুখতে নিরবিচ্ছিন্নভাবে কাজ করছে

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারি ২০১৯  

এসএসসি পরীক্ষার বাকি মাত্র ক‘দিন। আসন্ন এসএসসি পরীক্ষাকে দুর্নীতি মুক্ত করার জন্য সরকার সকল ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছে। তবে কিছু কুচক্রী মহল সামাজিক মাধ্যমে প্রশ্ন সরবরাহের বিজ্ঞাপনের প্রতিযোগিতায় মেতেছে। ২০০-৫০০ টাকার বিনিময়ে শিক্ষার্থীদের হাতে বোর্ডের প্রশ্ন পৌঁছানোর গ্যারান্টিও দেওয়া হচ্ছে। তবে এই সব বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ভুয়া প্রশ্নের এবং প্রশ্ন ফাঁসের কোনও সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের(ডিএমপি) সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ডিভিশন।

এর বাইরে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ড প্রশ্ন ফাঁস রোধে নানা পদক্ষেপ নিয়েছে। এসএসসি পরীক্ষাকে সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য সরকার সকল ধরণের কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছে বলেও জানা গেছে।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তদারকি করে দেখা গেছে, প্রশ্নফাঁসের বিজ্ঞাপনে সক্রিয় কয়েকটি ফেসবুক প্রোফাইলের মধ্যে রয়েছে নাহিদ আলী, এমএক্স মুহিত, আরিয়ান খান, জাহিদুল আলম সরকার, ফয়সাল আহমেদ পাটোয়ারি। এই প্রোফাইলগুলোতে দেয়া হয়েছে বিভিন্ন রকমের চটকদার বিজ্ঞাপন। তবে প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তরফ থেকে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। পাশাপাশি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের প্রশ্নফাঁসকারী চক্রগুলোর প্রলোভন থেকে দূরে থাকার জন্য আহ্বান করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোন ধরণের অপতৎপরতা চোখে পড়লে ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার জন্যও বিশেষভাবে অনুরোধ করা হয়েছে।

এবারের এসএসসি পরীক্ষায় সকল ধরণের অনিয়ম থেকে রক্ষা করতে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করে সাইবার সিকিউরিটি অ্যান্ড ক্রাইম ডিভিশনের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, আসন্ন এসএসসি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে সকল ধরণের অনিয়ম ও দুর্নীতি বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধ করার জন্য নিরলসভাবে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সাইবার সিকিউরিটি সেলের মাধ্যমে মনিটর করা হচ্ছে বিভিন্ন চিহ্নিত পেজের কার্যক্রম। পাশাপাশি গণমাধ্যমসহ সামাজিক মাধ্যমে প্রশ্নফাঁসের বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। আমরা শতভাগ আশাবাদী যে, এবারের পরীক্ষা শতভাগ দুর্নীতিমুক্ত হবে। এছাড়া শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং সরকারের সংশ্লিষ্ট মহল যেভাবে কাজ করছে, তাতে পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁস হওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।