• রোববার ২১ জুলাই ২০২৪ ||

  • শ্রাবণ ৬ ১৪৩১

  • || ১৩ মুহররম ১৪৪৬

কুকুরের আক্রমণে ৬ সপ্তাহের শিশুর মৃত্যু

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২ জুন ২০২৪  

ইজরা মানসুর নামের ছয় সপ্তাহ বয়সি এক শিশু বিছানায় শুয়ে ছিল। এমন সময় ঘরের পোষা কুকুর তার ওপর হঠাৎ আক্রমণ করে। কুকুরের ধারালো নখের আঁচড়ে শিশুটির শরীর গুরুতর জখম হয়। আক্রমণের ছয় দিন পর বৃহস্পতিবার শিশুটি মারা যায়। ঘটনাটি যুক্তরাষ্ট্রের টেনেসি অঙ্গরাজ্যের। কুকুরটি আট বছর ধরে ওই পরিবারের সঙ্গে আছে। এবিসি৭ এক প্রতিবেদনে বলেছে, কুকুরের কামড়ের ছয় দিন পর ইজরার মৃত্যু হয়েছে। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল ঠিকই।

কিন্তু হাসপাতালে ভর্তির পর শিশুটির অবস্থা খারাপ হয়ে যায়। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ ও মস্তিষ্ক ফুলে যাওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে। সন্তান হারানোর বেদনা নিয়ে শিশুটির মা ক্লো লোকাল১২কে বলেন, ইজরা মারা যাওয়ায় মার্ক মনসুর (বাবা) ও তিনি খুবই ভেঙে পড়েছেন। কারণ ইজরা তাদের প্রথম সন্তান ছিল। তিনি আরো বলেন, ‘মা হওয়াটা আমার কাছে সবচেয়ে সম্মানের বিষয় ছিল। ইজরা ছিল আমার কাছে সবচেয়ে দামি।’ শিশুটির মা হতাশ হয়ে বলেন, ‘এই কুকুরের আক্রমণে সবাই খুব অবাক হয়েছে। কারণ এটির কামড়ানোর কোনো রেকর্ড নেই। কখনো কাউকেই কামড়ায়নি পোষা কুকুরটি।

আমাদের দুইটা পোষা কুকুর ছিল। কিন্তু এই ঘটনাটি অপ্রত্যাশিত, যা আমরা কখনোই কল্পনা করিনি।’ ইজরার ক্ষেত্রে এমনটা ঘটবে এটি কখনোই কল্পনা করেননি এই দম্পতি। তবে ক্লো বলেন, আগে কামড়ানোর রেকর্ড থাকুক বা না থাকুক, এ ধরনের ঘটনা যেকোনো সময় যেকোনো কুকুর ঘটাতে পারে। সন্তান হারানোর শোকের মধ্যে ক্লো বলেন, কোনো কিছুকে স্বাভাবিকভাবে নেবেন না। কারণ যেকোনো সময় আশ্চর্যজনক কিছু ঘটে যেতে পারে।

সব পরিবারের জন্য মঙ্গল কামনা করে তিনি বলেন, ‘আমরা সবাই ইজরাকে খুব ভালোবাসতাম। তার মৃত্যুতে আমরা সবাই শোকাহত। যদিও এটি যেকোনো সময় ঘটতে পারে। কারণ এটি জীবনের একটি প্রক্রিয়া।’
এদিকে শিশু ইজরার স্মৃতি স্মরণে তার অঙ্গপ্রত্যঙ্গ দানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে মানসুর পরিবার। কারণ এর মাধ্যমে কোনো শিশুর উপকার হতে পারে, অন্যদের জীবন বাঁচতে পারে। এতে তাদের সন্তান হারানোর শোক কিছুটা কমবে। অন্যদিকে আক্রমণের পর কুকুরটিকে একটি স্থানীয় পশু কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছিল। এই ঘটনার তদন্ত করছে নক্স কাউন্টি শেরিফের অফিস।