• শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৭ ১৪২৯

  • || ০১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

মানিকগঞ্জে গ্রাহকদের কোটি টাকা আত্মসাৎ, দুই প্রতারক গ্রেপ্তার

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১০ মে ২০২২  

গ্রাহকদের অধিক লভ্যাংশ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার কাকনা বাজারে শিখা বাচিব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ নামের একটি সমবায় সমিতির বিরুদ্ধে। এ ঘটনায়  ভুঁইফোড় ওই প্রতিষ্ঠান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে গ্রেপ্তার করেছে  র‌্যাব-৪ এর আভিযানিক দল। মামলা হয়েছে দৌলতপুর থানায়। 

রোববার  বিকালে মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর  উপজেলার কাকনা বাজার এলাকার  ভুক্তভোগীদের  সুনির্দিষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে  সিপিসি-৩, র‌্যাব-৪ এর একটি টিম  শিখা বাচিব বহুমুখি সমবায় সমিতি লিঃ নামক অফিসে অভিযান পরিচালনা করে প্রতারণার দায়ে প্রতিষ্ঠানটির সভাপতি আঃ রাজ্জাক ওরফে লিয়াকত (৫১) ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আতোয়ার রহমান (৫৩)কে গ্রেপ্তার করে। এসময়  শিখা বাচিব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ অফিস থেকে সাপ্তাহিক, মাসিক সঞ্চয় ও ঋণ আদায় সিট, সদস্য ভর্তি ফরমসহ বিভিন্ন প্রকার রেজিস্টার উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাব-৪ এর মানিকগঞ্জের কোম্পানি কমান্ডার  লে. কমান্ডার আরিফ হোসেন জানান,  শিখা বাচিব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিমিটেড হিসেবে রেজিস্টার্ডভুক্ত হলেও প্রতারণামূলকভাবে সাধারণ জনগণকে ১২% সুদ হারে লভ্যাংশ প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিগত ১২ বছরে ২ কোটি অর্থ আত্মসাৎ করেছে বলে  তাদের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে।  ওই সমিতির  ২০ জন সদস্য অন্তর্ভুক্তির কথা উল্লেখ থাকলেও বর্তমানে ৪০০ থেকে ৪৫০ জন সদস্য রয়েছে। র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা আরো জানান, কোটি কোটি টাকা আদায় করলেও  ওই প্রতিষ্ঠানের কোনো রক্ষিত জামানত নেই ।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, সমবায় সমিতির মাঠ পর্যায়ের কর্মী/সদস্যদের মাধ্যমে মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর থানার বিভিন্ন এলাকার কৃষক দরিদ্র ব্যক্তি, মনোহারী ও ফুটপাতের দোকানদার, গৃহকর্মী ও নিম্নআয়ের মানুষদের টার্গেট করে ঋণের লোভ দেখিয়ে সঞ্চয়ের নামে তাদের কোম্পানীতে বিনিয়োগ/ডিপিএস করতে উদ্বুদ্ধ  করে। এবং ভুক্তভোগীদেরকে প্রলুব্ধ ও বিভিন্ন তথ্যাদি সংগ্রহ করে নানান কৌশলে ভুলিয়ে প্রতারক চক্রের অফিস কার্যালয়ে নিয়ে আসার ব্যবস্থা করে। শিখা বাচিব বহুমুখি সমবায় সমিতি লিঃ প্রতিদিন আনুমানিক ১৫ জন গ্রাহকের কাছ থেকে সঞ্চয় সংগ্রহ করে।

দীর্ঘদিন ধরে গ্রেপ্তারকৃত ব্যক্তিরা ভুক্তভোগীদের বিভিন্নভাবে অল্প সময়ে ঋণ প্রদানের নিশ্চয়তা প্রদান করে শিখা বাচিব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ  এ সঞ্চয়/বিনিয়োগ/ডিপিএস করতে আগ্রহী করে আসছিলো। ভুক্তভোগীদের বলা হতো ১০ থেকে ১৫ দিন নিয়মিত নির্দিষ্ট হারে সঞ্চয় প্রদান করলে তাদেরকে ঋণ প্রদান করা হবে যাতে করে তারা সুন্দরভাবে ব্যবসা করতে পারে। কিন্তু ভুক্তভোগীদের দু’একজনকে ঋণ দিলেও কেউ সঞ্চয় থেকে ঋণ পেতো না।

ভূক্তভোগীদের কাছ থেকে  সমিতির কিছু সদস্য দৈনিক ভিত্তিতে ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে সঞ্চয়/আমানত এর টাকা সংগ্রহ করতো এছাড়া ভুক্তভোগীদেরকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখানো হতো তারা যদি সময়মত সঞ্চয়/আমানত এর টাকা না পরিশোধ করে তাহলে তাদেরকে সঠিক সময়ে ঋণ প্রদান করা হবে না বা মেয়াদ শেষে তারা জমাকৃত সঞ্চয়ের মূল আমানত ও লভ্যাংশ থেকে বঞ্চিত হবেন।
র‌্যাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, মূল অভিযুক্ত শিখা বাচিব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি মোঃ আঃ রাজ্জাক ওরফে লিয়াকত  সাধারণ সম্পাদক মোঃ আতোয়ার রহমান  পেশাদার প্রতারক। তারা অল্প শিক্ষিত ব্যক্তি কিন্তু তাদের প্রকৃত পরিচয় আড়াল করে মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর থানাধীন কাকনা বাজারে শিখা বাচিব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ  প্রতিষ্ঠা করে এবং পরবর্তীতে অধিক মুনাফার আশায় সাধারণ জনগণের নিকট হইতে ১২% সুদ হারে লভ্যাংশ প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়াসহ বিভিন্ন অবৈধ কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী এই শিখা বাচিব বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ মোট সদস্য সংখ্যা ৩৫০-৪০০ জন এবং প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিগত ১২ বছরে ২  কোটি অর্থ আত্মসাৎ করেছে বলে অনুসন্ধানে জানা যায়।