• মঙ্গলবার   ২৪ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৯

  • || ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

সরকারি হাসপাতালে ডিউটি ফাঁকি দিয়ে প্রাইভেটে ব্যস্ত ডাক্তার

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১৪ মে ২০২২  

সরকারি হাসপাতালে ডিউটি ফাঁকি দিয়ে অধিক টাকার লোভে প্রাইভেট হাসপাতালে ব্যস্ত সময় পার করছেন ডাক্তার এমদাদুল হক ইমন। ডাক্তার এমদাদুল হক ইমন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে নিজ জেলার মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গত ১৬ই এপ্রিল যোগদান করে।

এরপর তিনি নিজ কর্মস্থলে ডিউটি না করে মানিকগঞ্জ শহরের বিভিন্ন প্রাইভেট হাসপাতালে রোগী দেখে ব্যস্ত সময় পার করছে। সরকারি নিয়ম অনুযায়ী সকাল ৮ টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ডিউটি করার কথা থাকলেও তা তোয়াক্কা না করে ডাক্তার এমদাদুল হক অধিক টাকার লোভে প্রাইভেট হাসপাতালে ডিউটি করছে।

বৃহস্পতিবার দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ডাক্তার এমদাদুল তার নিজ কর্মস্থলে নেই। তিনি সরকারি হাসপাতালে ডিউটি ফাঁকি দিয়ে মানিকগঞ্জ প্রাইভেট হাসপাতালে রয়েছে। এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা তাকে ফোন করে দ্রুত হাসপাতালে আসতে বলে।তার হাজিরা খাতা দেখলে দেখা যায়, হাজিরা খাতায় ডাক্তার এমদাদুল হকের এপ্রিল মাসের ২৭ তারিখ পর্যন্ত স্বাক্ষর রয়েছে এর পরে আর তার স্বাক্ষর নেই। ঈদের পরে তিনি সরকারি হাসপাতালে ডিউটিতে না গিয়ে মানিকগঞ্জে প্রাইভেট হাসপাতালেই দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে ডাক্তার এমদাদুল হক ইমন বলেন, আমি ১৬ এপ্রিল ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল থেকে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদান করেছি। আমি নিয়মিত সরকারি ডিউটি করছি। মনের ভুলে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করা দেয়া হয়নি। গত বৃহস্পতিবারও আমি হাসপাতালেই ডিউটি করেছি। যখন স্যার আমাকে ফোন দিয়েছিলেন তখন একটু বাহিওে ছিলাম।

এব্যাপারে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার শাহ আলম সিদ্দিক বলেন,যেহেতু সরকারি অফিস। অবশ্যই হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করতে হবে। যেহেতু হাজিরা খাতায় তার স্বাক্ষর নেই তারমানে তিনি অনুপস্থিত ছিলেন। অবশ্যই তাকে এবিষয়ে কারণ দর্শানো নোটিশ করা হবে।