• বুধবার   ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৯ ১৪২৯

  • || ১০ রজব ১৪৪৪

বর্ণিল আয়োজনে অনুষ্ঠিত পাটগ্রাম অনাথ বন্ধু উৎসব

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১৪ জানুয়ারি ২০২৩  

পৌষের কুয়াশা ভেদ করে শীতের সকালে সূর্য সবেমাত্র আলো ছড়াতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে পাটগ্রাম অনাথ বন্ধু সরকারি উচ্চবিদ্যালয় মাঠে আসতে শুরু করেন সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা।বর্ণিল আয়োজনে ‘পাটগ্রাম অনাথ বন্ধু উৎসব ২০২৩’ উদযাপনে আনন্দ আর উচ্ছ্বাসে মেতে উঠেন সহপাঠী আর সতীর্থরা। এ উৎসব পরিণত হয় সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থী-শিক্ষকদের মিলনমেলায়।  শুক্রবার সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এ মিলনমেলার সমন্বয়ক ছিলেন বিদ্যালয়ের এসএসসি ১৯৯৯ ব্যাচের ছাত্র ও আইন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব ও জুডিশিয়াল সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম মহাসচিব তৈয়বুল আজাহার। শুক্রবার সকাল ৭টায় সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত ও উদ্দীপনা সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে সূচনা হয় উৎসবের। বিদ্যালয়ের নামের সঙ্গে মিল রেখে নাম দেওয়া হয়েছে ‘পাটগ্রাম অনাথ বন্ধু উৎসব’। বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক পদ্মাপাড়ের সক্রেটিসখ্যাত হরিপদ সূত্রধর এই মিলনমেলার উদ্বোধন করেন।

অষ্টমবারের মতো আয়োজিত এই উৎসবে বিদ্যালয়ের সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের ২৫টি দল ক্রিকেট টুর্নামেন্টে অংশ নেয়। প্রতিটি ব্যাচ থেকে সাতজন খেলোয়াড় নিয়ে দল গঠিত হয়। এ টুর্নামেন্টের এসএসসি ২০১৩ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের দল চ্যাম্পিয়ন এবং ২০১৪ ব্যাচের শিক্ষার্থীদের দল রানার্সআপ হয়।

এ উৎসবে মেয়েরাও অংশগ্রহণ করেছেন সমানতালে। চামচে মারবেল নিয়ে মুখে করে দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশ নেন তারা। উৎসবে অংশগ্রহণকারী প্রতিটি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের জন্য ছিল আলাদা জার্সি। ছিল দুপুরের খাবারের আয়োজন। খেলাশেষে সবাই মিলে পরিষ্কার করেছে মাঠে পড়ে থাকা পলিথিন, পানির বোতল, কাগজের টুকরোসহ ময়লা-আবর্জনা।

বেলা ৩টার দিকে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়। ক্রিকেট টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ ট্রফি ছাড়াও ছিল প্রাক্তন ছাত্রীদের ইভেন্টের পুরস্কার, ম্যান অব দ্য উৎসব, ম্যান অব দ্য সেমিফাইনালস, ম্যান অব দ্য ফাইনাল, সেরা ব্যাটসম্যান, সেরা বোলার, সেরা কোচ, সেরা উদীয়মান খেলোয়াড়, আম্পায়ার, স্কোরার, অতিথি ধারাভাষ্যকার, ফটোগ্রাফার এবং অতিথিদের সম্মাননা স্মারক।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে বিদ্যালয়ের এসএসসি ১৯৯৯ ব্যাচের ছাত্র ও আইন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব ও জুডিশিয়াল সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম মহাসচিব তৈয়বুল আজাহার বলেন, 'মানুষ তার শৈশব-কৈশোরের স্মৃতি ভুলতে পারে না, ভুলা যায় না। পেশাগত কাজে শত ব্যস্ততার মাঝেও এই দিনটির জন্য অপেক্ষায় থাকা। উৎসবে সহপাঠী, বন্ধু, শিক্ষকদের সঙ্গে দীর্ঘদিন পর দেখার সুযোগ ঘটে। উৎসব শত প্রাণের মিলনমেলায় পরিণত হয়ে ওঠে।’

বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক পদ্মাপাড়ের সক্রেটিসখ্যাত হরিপদ সূত্রধর বলেন, এটি শুধু উৎসবই নয়, সম্প্রীতির মিলনমেলা। এ বিদ্যালয়ের সন্তানতুল্য ছাত্রছাত্রীরা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে মানুষের জন্য, দেশের জন্য কাজ করছে। উৎসবে শত শত সন্তানের হাসিমুখ দেখার সৌভাগ্যবান আমি।’

এ উৎসবে মানিকগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মহীউদ্দীন, হরিরামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান দেওয়ান সাইদুর রহমান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সাইফুল ইসলাম, সাবেক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল বাশার সবুজসহ বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন।