• শুক্রবার ২১ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৬ ১৪৩১

  • || ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

জামিন পাওয়ার ৩ দিন পর খুন

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩  

তিনদিন আগে জামিনে মুক্ত হন। জামিন পেয়েই গত দুদিনে ১২টি মোবাইল ফোন ছিনতাই করেন। মোবাইল বিক্রির টাকা দিয়ে বার থেকে মদ এনে নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগির সময় বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। পূর্বশত্রুতার জেরে একপর্যায়ে সাদ্দাম হোসেন সাব্বির ওরফে সিটু সাব্বির ওরফে সাগর নিজের কাছে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে ফারুক হোসেনের বাম পায়ের উরুতে আঘাত করে পালিয়ে যান। গুরুতর আহত ফারুককে হাসপাতালে নিয়ে গেলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ঘটনার দিন রাত ২টায় তার মৃত্যু হয়।

অবশেষে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সাদ্দাম হোসেন সাব্বিরসহ রনি (২৬) এবং বিজয়কে (৩৪) শনিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর তেজগাঁও থানা এলাকার পশ্চিম রাজাবাজার ও তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানার মোল্লাবাড়ী বস্তি এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। এসময় হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ধারালো চাকু ও ১০টি বিভিন্ন মডেলের মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

রোববার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুর সোয়া ১টায় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তেজগাঁও বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশানার আজিমুল হক। তিনি বলেন, গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টায় তেজগাঁও থানা এলাকার পানি ভবন সংলগ্ন ফুটপাতে পূর্বপরিচিত রনির সঙ্গে ফারুক হোসেন আড্ডা দিচ্ছিলেন। পূর্বশত্রুতার জেরে ফারুক হোসেনকে রনি ও বিজয় কৌশলে বাসা থেকে বের করে নিয়ে আসে ও আড্ডার মাধ্যমে সময়ক্ষেপণ করতে থাকে। আড্ডার একপর্যায়ে সাদ্দাম হোসেন সাব্বির ওরফে সিটু সাব্বির ওরফে সাগর তাদের সঙ্গে আড্ডায় যুক্ত হন। সাদ্দাম হোসেন সাব্বির এক বছর কারাভোগের পর জামিনে এসে দুদিনে ১২টি মোবাইল ছিনতাই করেন। তারা ছিনতাই করা মোবাইল বিক্রির টাকায় মদ পান করতে চান।

আজিমুল হক বলেন, সাদ্দাম হোসেন সাব্বির বার থেকে মদ এনে নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগির সময় ফারুক হোসেনের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। পূর্বশত্রুতার জেরে সাদ্দাম হোসেন সাব্বির নিজের কাছে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে ফারুক হোসেনের বাম পায়ের উরুতে আঘাত করে পালিয়ে যান। গুরুতর আহত অবস্থায় ফারুককে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ২টার দিকে তিনি মারা যান।

ঘটনা তদন্তের বিষয়ে তিনি বলেন, ফারুকের স্ত্রী ও আত্মীয়-স্বজনদের কাছে পাওয়া তথ্য ও হত্যাকাণ্ডে সম্ভাব্য জড়িতদের বিষয়ে তথ্য পেয়ে অভিযান চালিয়ে মূল অভিযুক্ত ও অন্য সহযোগীদের গ্রেফতার করা হয়। তাদের মধ্যে ছিনতাইয়ের টাকা ভাগবাটোয়ারার দ্বন্দ্বে হত্যার ঘটনাটি ঘটে।

গ্রেফতারদের বিষয়ে উপ-পুলিশ কমিশানার বলেন, সাদ্দাম হোসেন সাব্বিরের বিরুদ্ধে ডিএমপি’র তেজগাঁও থানা ও হাতিরঝিল থানায় অস্ত্র, দস্যুতা ও মাদক সংক্রান্তে সাতটি মামলা রয়েছে। রনির বিরুদ্ধে ডিএমপি’র তেজগাঁও থানা ও তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় অস্ত্র-মাদক, দস্যুতা ও ডাকাতির ১৩টি মামলা এবং বিজয়ের বিরুদ্ধে ১৭টি মামলা আছে।