• বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৫ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

মানিকগঞ্জে যাবজ্জীবনের আসামি ২০ বছর পর গ্রেপ্তার

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৮ আগস্ট ২০২৩  

মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে এক যুবককে হত্যার দায়ে যাবজ্জীবন সাজা পাওয়া এক আসামিকে ২০ বছর পর গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গ্রেপ্তার হওয়া ওমর আলী (৬৬) ছদ্মবেশে বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে বেড়াতেন। শনিবার (২৬ আগস্ট) রাতে ঢাকার সাভার থেকে র‌্যাব তাকে গ্রেপ্তার করে। রোববার (২৭ আগস্ট) সকালে র‌্যাব-৪-এর সিপিসি-৩ মানিকগঞ্জ ক্যাম্পের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আরিফ হাসান সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছেন। গ্রেপ্তার ওমর আলীর বাড়ি মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলার গাজিন্দা গ্রামে।

র‌্যাব জানায়, জমিজমা নিয়ে সিঙ্গাইরের গাজিন্দা গ্রামের বাসিন্দা রুবেলের বাবা সামছুল হকের সঙ্গে একই গ্রামের ওমর আলীর বিরোধ চলে আসছিল। ২০০১ সালের ২৪ এপ্রিল সকালে বিরোধপূর্ণ জমিতে চাষাবাদকে কেন্দ্র করে সামছুল ও তার ছেলে রুবেলের সঙ্গে ওমর আলীর কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। ওমর আলী সামান্য আঘাত পান।

এ ঘটনার দুই দিন পর (২০০১ সালের ২৬ এপ্রিল) গ্রামের একটি মাঠে একা পেয়ে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা ওমর আলী ও তার সহযোগী ইব্রাহিম হোসেন, আবদুর রাজ্জাক ও হানিফ আলীসহ অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও তিন-চারজন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রুবেলকে হত্যা করে। এর পর মরদেহ বস্তায় ভরে ওই মাঠের পাশের নালায় ফেলে দিয়ে হত্যাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে সামছুল হক তার ছেলেকে কোথায় খুঁজে না পেয়ে সিঙ্গাইর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। পরের দিন ওই নালার মধ্যে বস্তাবন্দী একটি মরদেহ পাওয়া যায়। ওই দিন রাতে ছেলেকে হত্যার দায়ে সামছুল হক বাদী হয়ে ওমর আলী ও তার সহযোগী ইব্রাহিম হোসেন, আবদুর রাজ্জাক ও হানিফসহ অজ্ঞাত পরিচয়ের আরও তিন-চারজনকে আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।

পরবর্তীতে আসামিদের গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এরপর ১৭ মাস কারাবাস শেষে জামিনে মুক্তি পান আসামিরা। জামিন পাওয়ার পর আসামি ওমর আলী আত্মগোপনে চলে যান। এ মামলার তদন্ত শেষে তদন্তকারী কর্মকর্তা এজাহারনামীয় আসামি ওমর আলী, ইব্রাহিম, রাজ্জাক এবং হানিফকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। এরপর ২০০৩ সালে জেলা ও দায়রা জজ আদালত ওমর আলীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং অপর আসামিদের মামলা থেকে অব্যাহতি দেন।

লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আরিফ হাসান বলেন, “জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি ওমর আলী আত্মগোপনে চলে যান। পরবর্তীতে তিনি ঢাকার সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় স্ত্রীকে নিয়ে আত্মগোপনে থেকে রিকশা চালিয়ে জীবিকানির্বাহ করে আসছিলেন। গোয়েন্দা নজরদারি ও গোপন অনুসন্ধানের মাধ্যমে র‌্যাবের মানিকগঞ্জ ক্যাম্পের একটি দল গতকাল শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে সাভারের বলিয়ারপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আজ রোববার সকালে তাকে সিঙ্গাইর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে”। সিঙ্গাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ মিজানুর ইসলাম বলেন, “আসামিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে”।