• শনিবার ২৫ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১০ ১৪৩১

  • || ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪৫

হেলে পড়ার ঘটনায় ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১২ মে ২০২৪  

ঢাকার ধামরাইয়ে চারতলা একটি ভবন অপর একটি ছয়তলা ভবনের ওপর হেলে পড়ার ঘটনায় পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। যদিও ভবনটি বৃষ্টি ও বজ্রপাতের কারণে হেলে পড়ে ফাটল দেখা দিয়েছে বলে দাবি মালিকপক্ষের। রোববার (১২ মে) বিকেল ৫টার দিকে তদন্ত কমিটি গঠনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ধামরাই পৌরসভার মেয়র গোলাম কবির মোল্লা।

শনিবার বিকেলে ধামরাইয়ের ঢুলিভিটা সংলগ্ন ধানসিঁড়িতে একটি চারতলা ভবন পাশের ছয়তলা ভবনের ওপর হেলে পড়ার দৃশ্য চোখে পরে স্থানীয়দের। পরে ফায়ার সার্ভিস, পৌর কর্তৃপক্ষ ও পুলিশ ওই দুই ভবনে বসবাসরতদের নিরাপদে সরিয়ে নেয়।  এ ছাড়া ওই দুই ভবন ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়।

সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খান মো. মামুন আব্দুল্লাহকে প্রধান করে এ তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী শাহাদাত হোসেনকে। পৌরসভার টাউন প্ল্যানার (নগর পরিকল্পনা কর্মকর্তা) ও পৌরসভার প্রকৌশলী, স্থানীয় কাউন্সিলরকেও কমিটিতে রাখা হয়েছে।  

মেয়র বলেন, আমরা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রধান করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। এ কমিটি বিচার-বিশ্লেষণ করে প্রতিবেদন আমাদের কাছে দেবে। সেই প্রতিবেদন নিয়ে আমরা এক্সপার্টের সঙ্গে কথা বলে সিদ্ধান্ত নেব। যতক্ষণ এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত কেউ এ দুই ভবনে বসবাস করতে পারবেন না।

তিনি বলেন, ধানসিঁড়ি হাউজিংয়ের ১০ ফুট রাস্তায় তারা বিল্ডিং কোড না মেনে ভবনের এ অংশ  (হেলে পড়া অংশ) বর্ধিত করেছে। বর্ধিত অংশের কোনো অনুমোদন নেই। বর্ধিত অংশ ভেঙে দেওয়া হবে। চারতলা ভবনের মালিক জিয়াউর রহমান সিকদারের ভাই মোহন সিকদার বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের সঙ্গে কেউ শত্রুতা করছে।

বৃষ্টি আর বজ্রপাতে বিল্ডিংয়ের এ অংশ হেলে পড়ে ফাটল ধরেছে। উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী শাহাদাত হোসেন বলেন, বৃষ্টিপাত ও বজ্রপাতে বিল্ডিং হেলে পড়া ও ফাটল ধরা সম্ভব নয়। তারা অনুমোদন ছাড়াই বিল্ডিংয়ের এ অংশ বর্ধিত করেছে। ভবন হেলে পড়া ও ফাটল ধরার নির্দিষ্ট কারণ এখনই বলা যাচ্ছে না। তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। তদন্ত করে এর কারণ উদঘাটন করা হবে।