• শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ||

  • ফাল্গুন ১০ ১৪৩০

  • || ১২ শা'বান ১৪৪৫

মেট্রোর উত্তর পথের কাজ শুরু জুলাইয়ে

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৪ মে ২০২৩  

ম্যাস র‌্যাপিড ট্রানজিট (এমআরটি) লাইন-৫-এর উত্তর পথের নির্মাণকাজ শুরু হচ্ছে আগামী জুলাইয়ে। গতকাল মঙ্গলবার প্রথম প্যাকেজের কাজের জন্য ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি সই করেছে মেট্রো রেল বাস্তবায়নকারী সরকারি প্রতিষ্ঠান ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল)।

এমআরটি লাইন-৫-এর উত্তর পথের নির্মাণকাজের মধ্যে প্রথমে ডিপো এলাকায় ভূমি উন্নয়নকাজ করা হবে। এতে খরচ ধরা হয়েছে এক হাজার ১৮৯ কোটি টাকা। এই রুটের ভূমি উন্নয়নের ঠিকাদার হিসেবে জাপানের টোই ও বাংলাদেশের স্পেকট্রাম যৌথভাবে কাজ করবে। গতকাল উত্তরার দিয়াবাড়ীতে অবস্থিত মেট্রো রেলের ডিপোতে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান হয়।

ডিএমটিসিএল কর্তৃপক্ষ বলেছে, উত্তর পথের নির্মাণকাজ ১০টি প্যাকেজের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হবে। এর মধ্যে প্যাকেজ সিপি-১ (ডিপো এলাকার ভূমি উন্নয়ন)-এর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নিয়োগের কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে। আগামী জুলাইয়ে উদ্বোধনের মাধ্যমে লাইন-৫-এর নির্মাণকাজ শুরু করা যাবে।

গাবতলী, মিরপুর-১০, কচুক্ষেত, বনানী, নতুনবাজার সড়কের নিচ দিয়ে যাবে এ রুটের একটি অংশ। আর হেমায়েতপুর থেকে আমিনবাজার এবং নতুনবাজার থেকে ভাটারা অংশ তৈরি করা হবে সড়কের ওপর দিয়ে। পাতাল ও উড়াল সমন্বয়ে লাইনটির দৈর্ঘ্য ২০ কিলোমিটার।

এর মধ্যে ১৩.৫০ কিলোমিটার পাতাল এবং ৬.৫০ কিলোমিটার হবে উড়াল। এমআরটি-৫-এর পাতাল অংশে ৯টি এবং উড়ালে পাঁচটি স্টেশন নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে মাটির নিচে স্টেশন থাকবে যথাক্রমে গাবতলী, দারুসসালাম, মিরপুর-১, মিরপুর-১০, মিরপুর-১৪, কচুক্ষেত, বনানী, গুলশান-২ ও নতুনবাজার।

প্রকল্পটির কাজ ২০২৮ সালের মধ্যে শেষ করার পরিকল্পনা আছে সরকারের। এর নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ৪১ হাজার ২৩৮ কোটি টাকা। এ প্রকল্পেও ঋণ সহায়তা দিচ্ছে জাইকা। সরকার দেবে ১২ হাজার ১২১ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

ঢাকা মহানগরী ও পার্শ্ববর্তী এলাকার যানজট নিরসনে এবং পরিবেশ উন্নয়নে অত্যাধুনিক গণপরিবহন হিসেবে মেট্রো রেলের পরিকল্পনা, জরিপ, নকশা, অর্থায়ন, নির্মাণ, পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ করতে ডিএমটিসিএলের আওতায় ছয়টি মেট্রো রেলের সমন্বয়ে একটি নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার পরিকল্পনা করেছে সরকার।

কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী, উত্তরা উত্তর থেকে কমলাপুর পর্যন্ত ২১.২৬ কিলোমিটার দীর্ঘ ও ১৭টি স্টেশনবিশিষ্ট প্রথম মেট্রো রেলের আংশিক পথ এরই মধ্যে উদ্বোধন করা হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরে আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত অংশ এবং ২০২৫ সালের জুন মাসে মতিঝিল থেকে কমলাপুর পর্যন্ত অংশ উদ্বোধন করতে চায় সরকার।

২০২৬ সালের মধ্যে কমলাপুর থেকে বিমানবন্দর পর্যন্ত ১৯.৮৭  কিলোমিটার পাতাল এবং নতুন বাজার থেকে পিতলগঞ্জ ডিপো পর্যন্ত ১১.৩৭ কিলোমিটার উড়াল মিলিয়ে মোট ৩১.২৪ কিলোমিটার দীর্ঘ ২১টি স্টেশনবিশিষ্ট এমআরটি লাইন-১ নির্মাণের লক্ষ্যে বিশদ নকশা ও ডিপোর ভূমি অধিগ্রহণ সমপন্ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চলতি বছরের ২ ফেব্রুয়ারি দেশের প্রথম পাতাল মেট্রো রেল এমআরটি লাইন-১ নির্মাণের নির্মাণকাজের উদ্বোধন করেন। বর্তমানে ডিপোর ভূমি উন্নয়নসংক্রান্ত প্যাকেজের নির্মাণকাজ চলছে। অন্য প্যাকেজগুলোর দরপত্র প্রক্রিয়াকরণ কার্যক্রম বিভিন্ন পর্যায়ে বাস্তবায়নাধীন আছে।