• বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৫ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

অর্থনৈতিক অঞ্চলে সুইডেনের বৃহত্তর বিনিয়োগ চান প্রধানমন্ত্রী

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ৩১ মে ২০২৩  

বাংলাদেশে অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তিতে (আইসিটি) আরও সুইডিশ বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের আইসিটি ও অর্থনৈতিক অঞ্চলে সুইডেনের কাছ থেকে আরও বিনিয়োগ চাই।

সুইডিশ পোশাক কোম্পানি এইচএন্ডএম-এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) এবং প্রেসিডেন্ট হেলেনা হেলমারসনের নেতৃত্বে একটি সুইডিশ প্রতিনিধিদল প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম এসব জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগ সরকার রফতানি পণ্যে বৈচিত্র্য এনে রফতানি ঝুড়িকে আরও সম্প্রসারণ করতে চায় বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের নিজস্ব অর্থনৈতিক নীতি রয়েছে। কর্মসংস্থান সৃষ্টির পাশাপাশি দারিদ্র্য বিমোচন, খাদ্য নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যসেবা প্রদানেরও পরিকল্পনা রয়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় গৃহীত পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সরকার কার্যকরভাবে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা করছে। সরকার জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব সম্পর্কে খুবই সচেতন। এ বিষয়ে কাজ হচ্ছে।

নারীর ক্ষমতায়ন ও লিঙ্গ সমতা নিশ্চিতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে সরকার কাজ করে যাচ্ছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের উত্থান সত্ত্বেও কোভিড-১৯ মহামারি থেকে উদ্ভূত খারাপ সময়ে বাংলাদেশ থেকে কোন প্রকার ক্রয় আদেশ বাতিল না করার সুইডিশ পদক্ষেপের প্রশংসাও করেন তিনি।

অন্যদিকে এইচএন্ডএম প্রেসিডেন্ট হেলেনা হেলমারসন জানান, বাংলাদেশের সঙ্গে তাদের বিশেষ সম্পর্ক রয়েছে। তিনি বলেন, আমরা গত তিন দশক ধরে বাংলাদেশের সঙ্গে ব্যবসা করছি। আমরা বাংলাদেশের সঙ্গে ব্যবসাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে সফলভাবে দেশের অগ্রগতি নিশ্চিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বের প্রশংসা করেন হেলেনা হেলমারসন।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. তোফাজ্জেল হোসেন মিয়া, ঢাকায় সুইডেনের রাষ্ট্রদূত আলেকজান্দ্রা বার্গ ফন লিন্ডে এবং এইচএন্ডএম-এর প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা অ্যাডাম কার্লসন উপস্থিত ছিলেন।