• রোববার   ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১০ ১৪২৯

  • || ২৮ সফর ১৪৪৪

দৌলতপুরে নদীশাসন কাজ পরিদর্শনে এমপি দুর্জয়

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০২২  

মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার প্রমত্তা যমুনা ও হরিরামপুর উপজেলার পদ্মাপাড়ের মানুষের নদীভাঙনের হাত থেকে বাঁচাতে সাড়ে ২৩ কোটি টাকা ব্যয়ে দুই কিলোমিটার নদীভাঙন রক্ষাকরণ প্রকল্পের কাজ চলছে।

কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন মানিকগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক এএম নাঈমুর রহমান দুর্জয়।

সোমবার বিকালে দৌলতপুরের বাঁচামারা এলাকায় যমুনা নদীশাসন কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন তিনি।

পরিদর্শনকালে দুর্জয় বলেন, আমার নির্বাচনি এলাকার বেশিরভাগই নদীর তীরবর্তী এলাকা। যেখানে প্রতি বছর বর্ষা এলেই ভাঙনের আতঙ্ক বিরাজ করে। ইতোমধ্যে শত শত বাড়িঘর যমুনায় বিলীন হয়ে গেছে। তাদের কথা চিন্তা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাঙন রক্ষার জন্য নদীশাসন কাজের একটি বড় প্রকল্প দিয়েছেন। এতে করে ভাঙনের হাত থেকে শতাধিক গ্রাম রক্ষা পাবে।

দুর্জয় বলেন, বিগত বিএনপি জোট সরকারের আমলে দুর্গম চরাঞ্চলের কোনো উন্নয়ন হয়নি। তারা উন্নয়নের নামে লুটপাটে ব্যস্ত ছিল।

আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর প্রতিটি ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। নদীভাঙন রক্ষায় বিভিন্ন সময় নানাভাবে নদীভাঙন ঠেকানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।

চরাঞ্চলের মানুষের জীবনমান উন্নয়নে বিভিন্ন উন্নয়নকাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ অর্থবছরেই দৌলতপুরের চরকাটারী, পারুরিয়াবাজার এলাকায় নদীতীর রক্ষায় কাজ বাস্তবায়ন করা হবে বলে তিনি জানান।
 
এ সময় মানিকগঞ্জ পানি উন্নয়ন বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী (পুর) মো. মাঈন উদ্দিন জানান, ২৩ কোটি ৬৬ লক্ষাধিক টাকার জিওব্যাগ ফেলে নদীশাসন কাজ প্রকল্প চলছে। শুকনো মৌসুম হওয়ায় দ্রুত কাজ করা সম্ভব হচ্ছে। আগামী মে মাসের মধ্যে এ প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে তিনি জানান।

পরিদর্শনকালে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ইমরুল হাসান, বাঁচামারা ইউপি চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রশিদ সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট একেএম আজিজুল হক, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস, দৌলতপুর থানার ওসি জাকারিয়া হোসাইন, মানিকগঞ্জ জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক প্যানেল মেয়র আব্দুর রাজ্জাক রাজা, দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক হুমায়ুন কবির শাওন, ছাত্রলীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার নাসির উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক এসএম আতাউর রহমান প্রমুখ।