• বৃহস্পতিবার ২০ জুন ২০২৪ ||

  • আষাঢ় ৫ ১৪৩১

  • || ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সিঙ্গাইরে হত্যাচেষ্টার মামলা তুলে নিতে বাদীকে ধর্ষণের হুমকি

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৫ জানুয়ারি ২০২৩  

মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইরে এক আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যাচেষ্টার মামলা তুলে নিতে আসামিরা বাদীকে ধর্ষণ ও তাঁর শিশুসন্তানকে অপহরণের হুমকি দিচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় নিরাপত্তা চেয়ে বাদী থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন। ভুক্তভোগী আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মালেক উপজেলার চান্দহর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তাঁর মেয়ে রানু আক্তার মামলার বাদী।

মামলার অভিযোগ ও স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে গত ১৩ জানুয়ারি আব্দুল মালেকের ওপর হামলা চালান প্রতিবেশী সাইদুর রহমান ও তাঁর সহযোগীরা। তখন আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। ধারাল অস্ত্র ও লাঠিসোঠার আঘাতে আব্দুল মালেকের মাথা ফেটে যায় ও পুরো শরীর রক্তাক্ত জখম হয়। মুমূর্ষু অবস্থায় প্রথমে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। উন্নত চিকিৎসার জন্য  সেখান থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। তার মাথায় ২৫টি সেলাই দেওয়া হয়েছে বলে জানান স্বজনরা।

এ ঘটনায় ১৬ জানুয়ারি চর মূলবর্গ গ্রামের মৃত রহমত আলীর ছেলে সাইদুর রহমান (৪০), মৃত কদম আলীর ছেলে আবুল হোসেন (৪০) মিজানুর রহমানের ছেলে সিয়াম রহমান (২২), মৃত জাকির মাস্টারের ছেলে লিংকন (২৩), আশরাফ আলীর ছেলে রিয়াজুল ইসলাম (৩২), সাভারের ফুলবাড়িয়া গ্রামের নাছির উদ্দীনের ছেলে হাসান (২৫) ও ঢাকার নবাবগঞ্জের মেলেং গ্রামের আনোয়ার হেসেনের ছেলে ইরফানসহ (২২) অজ্ঞাতনামা আরও ৩-৪ জনকে আসামি করে থানায় হত্যাচেষ্টার মামলা করেন আব্দুল মালেকের মেয়ে রানু আক্তার।

রানু আক্তার অভিযোগ করে বলেন, ১৮ জানুয়ারি আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন পেয়েছেন আসামি লিংকন, রিয়াজুল, হাসান ও ইরফান। জামিন পেয়ে বিচারকের এজলাস থেকে বেরিয়ে আদালতের বারান্দায় তাঁরা আমাকে মামলা তুলে না নিলে ধর্ষণ, এসিড মেরে মুখ ঝলসে দেওয়ার ও আমার শিশুসন্তানকে অপহরণের হুমকি দেন। এছাড়া প্রতিদিনই দল বেঁধে অস্ত্র নিয়ে বাড়ির সামনে দিয়ে মহড়া চালানো হয়। তাদের হুমকিতে প্রাণভয়ে বাড়িঘর ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছি। এমতাবস্থায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে মানিকগঞ্জ সদর ও সিঙ্গাইর থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছি। এখন আমাদের প্রতিটি মুহূর্ত চরম নিরাপত্তাহীনতায় কাটছে।

মামলার আসামি সাইদুর রহমানের ব্যবহৃত মুঠোফোনে ফোন করা হলে তিনি সাইদুর রহমান না বলে ফোন কেটে দেন। অন্য আসামিদের নম্বর বন্ধ পাওয়া গেছে।

সিঙ্গাইর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) সফিকুল ইসলাম মোল্লা বলেন, মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি দেওয়ার ঘটনায় আসামিদের বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে হত্যাচেষ্টার শিকার আব্দুল মালেকের মেয়ে রানু আক্তার। ঘটনার সত্যতা পেলে আসামিদের জামিন বাতিলের জন্য আদালতে আবেদন করা হবে।