• রোববার   ১৭ অক্টোবর ২০২১ ||

  • কার্তিক ২ ১৪২৮

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

গ্রিজম্যানের জোড়া গোল, রিয়ালকে ছুঁয়ে ফেললো বার্সা

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৬ এপ্রিল ২০২১  

রিয়াল বেটিসের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে নিজেদের সর্বনাশ নিজেরাই করেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। যার ফলে অ্যাটলেটিকোর সঙ্গে লড়াইয়ে টিকে থাকার সুযোগটা ছিল। কিন্তু আপাতত দুই পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে বার্সার অপেক্ষাতেই যেন ছিল যে, তারা কী করে দেখা যাক।

কিন্তু ভিয়ারিয়ালের মাঠে গিয়ে ফরাসী তারকা আন্তোনিও গ্রিজম্যানের জোড়া গোল বার্সেলোনাকে সঠিক পথেই রেখেছে। স্বাগতিকদের ২-১ গোলে হারিয়ে পয়েন্ট টেবিলে রিয়াল মাদ্রিদকে ছুঁয়ে ফেললো লিওনেল মেসিরা।

এল ক্ল্যাসিকোয় হেরে লিগ শিরোপা থেকে পিছিয়ে পড়লেও টানা দুই ম্যাচে রিয়াল মাদ্রিদ হোঁচট খাওয়ায় বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের ছুঁয়ে ফেলার দারুণ সুযোগ এসে যায় কাতালানদের সামনে। ভিয়ারিয়ালকে হারিয়ে সে সুযোগটা ভালোভাবেই কাজে লাগালো বার্সা।

কাতালানদের হয়ে দুটি গোলই করেছেন আন্তোনিও গ্রিজম্যান। ভিয়ারিয়ালের হয়ে একমাত্র গোলটি আসে স্যামুয়েল চুক্কুয়েজের কাছ থেকে। ৩২ ম্যাচ শেষে ৭১ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে বার্সেলোনা। এক ম্যাচ বেশি খেলা রিয়ালের পয়েন্টও ৭১। তবে হেড টু হেডে এগিয়ে আছে দলটি। ৩২ ম্যাচে ৭৩ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ।

ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে এ জয়ে ভালোভাবেই লিগে টিকে রইল বার্সেলোনা। অ্যাটলেটিকোর বিপক্ষে বার্সেলোনার ম্যাচের গুরুত্বও বাড়ল। সেই ম্যাচের ফলাফলের উপর অনেকটাই নির্ভর করবে এবারের আসরে শিরোপা উঠবে কার ঘরে।

২৬তম মিনিটে চুক্কুয়েজের গোলে এগিয়ে যায় ভিয়ারিয়াল। পাউ তোরেসের বাড়ানো বল দারুণভাবে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেনকে কাটিয়ে কোণাকোণি শটে লক্ষ্যভেদ করেন এ নাইজেরিয়ান।

সমতায় ফিরতে অবশ্য খুব বেশি সময় নেয়নি বার্সা। পরের মিনিটেই গ্রিজম্যানের বুদ্ধিদীপ্ত ফিনিশিংয়ে ম্যাচে ফেরে মেসিরা। অস্কার মিঙ্গুয়েজার থ্রু পাসে বল ধরে ডান প্রান্ত থেকে আলতো টোকায় বল জালে পাঠান এ ফরাসি তারকা।

৩৫তম মিনিটে গোল উপহার পায় বার্সা। গোলরক্ষককে ব্যাক পাস দিয়ে চেয়েছিলেন হুয়ান ফয়েথ। কিন্তু জোর না থাকায় আগেই ধরে ফেলেন গ্রিজম্যান। জোরালো শটে বল জালে পাঠাতে কোনো ভুল করেননি এ মিডফিল্ডার। ৪৪তম মিনিটে হ্যাটট্রিক পেতে পারতেন গ্রিজম্যান। ডি ইয়ংয়ের ব্যাকহিল থেকে ফাঁকায় বল পেয়ে গিয়েছিলেন। কোণাকোণি শটও নিয়েছিলেন। বাঁধা হয়ে দাঁড়ান গোলরক্ষক আসেনিও।