• রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||

  • অগ্রাহায়ণ ২১ ১৪২৮

  • || ২৯ রবিউস সানি ১৪৪৩

মানিকগঞ্জে জমজমাট মাছের বাজার

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর ২০২১  

সূর্য ওঠার আগেই জেলে এবং পাইকারদের পদচারণায় জমজমাট মানিকগঞ্জের দেশীয় মাছের আড়ত। পানি কমে যাওয়ায় জেলের জালে ধারা পড়ছে বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় মাছ। দামও ভালো পেয়ে খুশি জেলেরা।

ভোরেই জেলে, পাইকার আর ক্রেতা-বিক্রেতায় জমে ওঠে মানিকগঞ্জ সদরের তরার ঘাটের বৃহৎ দেশীয় মাছের আড়ত। পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন নদী ও খাল বিলের নানা প্রজাতির দেশীয় মাছ। পানি কমে যাওয়ায় জেলের জালে ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে দেশীয় মাছ। দাম ভালো পেয়ে খুশি জেলেরা। সেই সঙ্গে টাকটা ও সুস্বাদু দেশীয় মাছ পেয়ে খুশি ক্রেতা ও দূর-দূরান্তের পাইকাররা।
 
বাজারের বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শীত মৌসুমে পদ্মা এবং যমুনার পানি কমে আসায় ঝাঁকে ঝাঁকে মাছ ধরা পড়ছে জেলেদের জালে। জেলে এবং বিক্রেতা উভয়েই ভালো দাম পাচ্ছে বলে জানায় তারা।
 
অন্যদিকে ক্রেতারা জানায়, বড় মাছের দাম একটু বেশি হলেও সব ধরনের মাছ পাওয়া যায় বলে দূর-দূরান্ত থেকে ক্রেতারা এখানে ছুটে আসে।
 তবে শত বছরের ঐতিহ্যবাহী দেশীয় মাছের আড়ত হলেও নেই পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা।

এ ব্যাপারে তরা মৎস্য আড়ত কমিটির যুগ্ম সম্পাদক মো. জুয়েল হোসেন  বলেন, "বর্ষাকালে পানি নিষ্কাশনের সুবিধা না থাকায় আমাদের নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এখানে মাছ আনার রাস্তাও খুব একটা সুবিধার না। বর্ষাকালে রাস্তাগুলো ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ে।"
 
বাজার ঘুরে দেখা যায়, মলা মাছ ১০০ টাকা থেকে ১২০ টাকা, সরপুঁটি ১১০ টাকা থেকে ১২০ টাকা, বোয়াল ৮০০ টাকা থেকে ৯০০ টাকা, আইরকাটা ৯০০ টাকা থেকে ৯৫০ টাকা, কার্পো মাছ ১৬০ টাকা থেকে ১৭০ টাকা, চাপলা ৭০০ টাকা থেকে ৭৫০ টাকা, রুই ১২০ টাকা থেকে ১৪০ টাকা, কই মাছ ৭০০ টাকা থেকে ৮০০ টাকা, শোল ৫৫০ টাকা থেকে ৬০০ টাকা, ছোট ইলিশ ৪০০ থেকে ৪২০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হচ্ছে।
 
ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের মানিকগঞ্জ সদরে তরা ঘাটের মৎস্য আড়তে প্রতিদিন কোটি টাকার বিভিন্ন প্রজাতির দেশীয় মাছ বেচাকেনা হয় বলে জানিয়েছে বাজার সংশ্লিষ্টরা।