• মঙ্গলবার   ০৫ জুলাই ২০২২ ||

  • আষাঢ় ২১ ১৪২৯

  • || ০৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

মহা বিপদ, গণপদত্যাগ শুরু হচ্ছে বিএনপিতে

মানিকগঞ্জ বার্তা

প্রকাশিত: ২৭ জানুয়ারি ২০১৯  

বিএনপিতে এখন চলছে টাল মাটাল অবস্থা। নেতারাও জানেন না, বিএনপি কোন পথে হাঁটছে। বিএনপির সব নির্দেশনা আসছে লন্ডন থেকে। সকালের সিদ্ধান্ত রাতেই পাল্টে যাচ্ছে।

৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের পর বিএনপির রাজনীতি শুধু কথামালার মধ্যেই সীমাবদ্ধ। এরকম অবস্থার জন্য দায়ী করা হচ্ছে লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে। বিএনপির শীর্ষ স্থানীয় নেতারা বলছেন, ‘তারেক রহমানের ভুল সিদ্ধান্তে ডুবতে বসেছে বিএনপি। তিনি দলের স্বার্থ না দেখে, নিজের লাভ-ক্ষতি বিবেচনা করে দল চালাচ্ছেন।’

বিএনপির একজন শীর্ষস্থানীয় নেতা বলেছেন, ‘এভাবে চলতে থাকলে কয়েকদিনের মধ্যে গণপদত্যাগ শুরু হবে।’ বিএনপির একাধিক সূত্র বলছে, নির্বাচনের পর একাধিক ভুল সিদ্ধান্তের জন্য মির্জা ফখরুলকে দায়ী করা হলেও সব সিদ্ধান্তই লন্ডন থেকে এসেছে। তাদের প্রথম সিদ্ধান্ত ছিলো খালেদা জিয়ার মুক্তি ছাড়া নির্বাচনে যাবে না। বদলে গেল সিদ্ধান্ত, খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্যই নির্বাচনে যাবে বিএনপি। নির্বাচনে যাবার পর বলা হলো; নির্বাচন থেকে কোন অবস্থাতেই সরবে না বিএনপি। কিন্তু নির্বাচনের আগেই দেখা গেল একের পর এক প্রার্থীরা সরে যাচ্ছেন। বিকেল নাগাদ বিএনপির ১৩৭ জন প্রার্থীই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াল।

বিএনপি মহাসচিব বললেন, ‘নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর কোন সিদ্ধান্তই দলগতভাবে নেয়া হয়নি, যারা সরে দাঁড়িয়েছেন, এটা তাদের ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। কিন্তু সরে দাঁড়ানো ওই সকল প্রার্থীরা বলছেন, তারেক রহমানের পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী তারা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন।’

নির্বাচনের পরও তারেক রহমান বিএনপি নিয়ে খেলছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তারেক রহমান, ব্যারিস্টার মওদুদসহ সিনিয়র কয়েকজনকে বলেছেন, দল পুনর্গঠন করতে হবে, দলে নতুন মহাসচিব আনতে হবে। আবার মির্জা ফখরুলকে বলেছেন, এখন কোন পরিবর্তন নয়। নির্বাচনের পর বললেন, ঐক্য-ফ্রন্ট রাখার দরকার নেই। পরদিন বললেন, ঐক্য-ফ্রন্ট থাকবে। তারেক রহমানের নির্দেশেই আবার মির্জা ফখরুল ঐক্য-ফ্রন্টের সভা বর্জন করেন।

তারেক রহমানের নির্দেশেই মির্জা ফখরুল ঘোষণা করেন যে, বর্তমান সরকার এবং নির্বাচন কমিশনের অধীনে কোন নির্বাচনে যাবে না বিএনপি। আবার পরবর্তীতে তারেক রহমানই নতুন ফতোয়া জারি করলেন নির্বাচনে যেতে হবে।

বিএনপির নেতারাই এখন তারেকের ওপর বিরক্ত। তারা বলছেন, লন্ডনে বসে নিজের মত করে তারেক রহমান একের পর এক ভুল সিদ্ধান্ত দিয়ে যাচ্ছেন। তাকে অনুরোধ করা হয়েছিল যে, দলের স্থায়ী কমিটির শূন্য পদগুলো পূরণ করার উদ্যোগ নিতে। কিন্তু উপরি টাকা না পাওয়ায় এ পদে নিয়োগ দিচ্ছেন না তিনি। বিএনপি নেতারাই এখন তারেক রহমানকে বাইরে রেখে দল চালানোর কথা বলছেন। তাদের মতে, ‘তারেকের হাতে বিএনপি নিরাপদ নয়।’